সাইবার অপরাধের হুমকির মুখে বাংলাদেশ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৮:৪৬ | আপডেট : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ২১:৪২ | অনলাইন সংস্করণ

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশও এখন সাইবার অপরাধের হুমকির মুখে বলে জানিয়েছে দেশের সাইবার বিশেষজ্ঞরা। রোববার থেকে শুরু হতে যাচ্ছে সাইবার নিরাপত্তা সচেতনতা মাস অক্টোবর-২০১৭। এ উপলক্ষে রাজধানীর ডিআরইউ সাগর-রুনী মিলনায়তনে জনগনের সচেতনতা বাড়াতে সংবাদ সম্মেলন করেছে সাইবার ক্রাইম ফাউন্ডেশন ও ইনফরমেশন সিস্টেমস অডিট অ্যান্ড কন্ট্রোল এসোসিয়েশন (আইসাকা)।

সংবাদ সম্মেলনে সারা দেশে সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানে ও সামাজিক সংগঠনগুলোর  প্রতি সচেতনতামূলক কর্মসূচি নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দেশের সাইবার বিশেষজ্ঞরা। পাশাপাশি গণসেবামূলক প্রতিষ্ঠানগুলোর সাইবার ঝুঁকি নির্ধারন ও জাতীয় সাইবার নিরাপত্তায় দক্ষ জনশক্তি তৈরিসহ সরকারের প্রতি বিভিন্ন সুপারিশ জানান তারা।

এসময় সাইবার ক্রাইম ফাউন্ডেশনের সদস্য সচিব আব্দুল্লাহ হাসান বলেন, আমাদের দেশে সাইবার অপরাধের লক্ষ্য অর্থ (ই-মানি) নয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে প্রতিদিন নানা বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন অনেকেই। এমনকি প্রতিনিয়ত কেউ না কেউ শিকার হচ্ছেন একদল অসাধু চক্রের ব্লাকমেইলের। এর প্রধান কারন হিসেবে ইন্টারনেট ব্যবহারে সাধারন জনগনের অসচেতনতা ও সাইবার প্রশাসনে অদক্ষ জনবলকেই দায়ি করেন তিনি।

আইসাকা ঢাকা চ্যাপ্টারের সেক্রেটারি ওমর ফারুক খন্দকার বলেন, সাইবার নিরাপত্তায় দেশের বিপুল জনশক্তি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কাজে লাগানো যেতে পারে। এতে তারা সাইবার নিরাপত্তার বিভিন্ন টুলস তৈরি করে সেগুলো আন্তর্জাতিকভাবে বাজারজাত করে বিপুল বৈদেশিক মুদ্রাও অর্জন করা সম্ভব। তিনি আরও বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন রাষ্ট্রের পৃষ্ঠপোষকতায় সাইবার আক্রমণের ঘটনাও ঘটছে। অনেক দেশই ভবিষ্যত সাইবার যুদ্ধের জন্য নিজেদের প্রস্তুত করছে। এ কারণে তারা সাইবার নিরাপত্তাকে জাতীয় নিরাপত্তার সঙ্গে যুক্ত করেছে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন, সাইবার ক্রাইম অ্যাওয়ারনেস ফাউন্ডেশনের আহ্বায়ক কাজী মুস্তাফিজ, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক প্রকৌশলী সৈয়দ জাহিদ হোসেন ও সংগঠনের উপদেষ্টা মোহাম্মদ কাওসার উদ্দিন। সামনে সাইবার নিরাপত্তা সচেতনতা মাসকে কেন্দ্র করে দেশের জাতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি বিভিন্ন সুপারিশ তুলে ধরেন আলোচকরা। আলোচনায় জনসচেতনতা, সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা, দক্ষ জনশক্তি তৈরি, জাতীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর সাইবার ঝুঁকি চিহ্নিত করা, সাইবার নিরাপত্তার কাজে দেশি প্রতিষ্ঠানকে গুরুত্ব দেয়া, গুমাধ্যমে প্রচার, আইনশৃঙ্খলা বাহীনিতে প্রশিক্ষিত জনবল বাড়ানোসহ আইপি লগ সংরক্ষনের আইন বিষয়ক মোট আটটি বিষয়কে গুরুত্ব দেন সাইবার বিশেষজ্ঞরা। বিশেষজ্ঞদের মতে, বাংলাদেশে সাইবার অপরাধ ডানা মেলতে শুরু করেছে। দ্রুত সচেতনতা বৃদ্ধি ও কার্যকরি ব্যবস্থা গ্রহন না করলে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহরুপ ধারন করবে।

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে