প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ আর অভিযোগ

  গজারিয়া (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি

১৮ জানুয়ারি ২০১৮, ২১:৫৩ | আপডেট : ১৮ জানুয়ারি ২০১৮, ২১:৫৫ | অনলাইন সংস্করণ

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দী ইউনিয়নের ৫০ নং চরবলাকী (নতুনচর) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সাহরিন সুলতানা। দীর্ঘদিন স্কুলটির দায়িত্বে থাকা এই প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে উঠেছে ক্লাস না নেওয়া, খারাপ আচরণ, স্কুলে বিভিন্ন বিষয়ে নজর না রাখাসহ বিভিন্ন অভিযোগ।

এ বিষয়ে স্থানীয় কয়েকজন জানান, স্কুলটিতে শারীরিক শিক্ষা ক্লাস হয়না। শিক্ষকরাও যথাসময়ে স্কুলে যান না। এ ছাড়া প্রশংসা পত্র, বই বিতরণ, সিলেবাসসহ নানা উপকরণে আদায় করা হচ্ছে নিয়মবহির্ভূত টাকা।

স্কুলটির কয়েকজন সহকারী শিক্ষকের অভিযোগের তালিকাটা বেশ বড়। তারা জানান, গত সাত বছরে একদিনও ক্লাস নেননি প্রধান শিক্ষিকা। ক্লাস নেওয়ার কথা বললে তিনি বলেন, প্রধান শিক্ষককে কোনো ক্লাস নিতে হয় না। মাঝে মাঝে তাদের সঙ্গে খারাপ আচরণও  করেন প্রধান শিক্ষিকা।   

বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য মো. আবদুর রাজ্জাক জানান, গত সাত বছরে সাহরিন সুলতানা কোনো ক্লাস নেননি। এ বিষয়ে তাকে একাধিকবার বলা হলেও কোনো লাভ হয়নি ।

এ নিয়ে কথা হয় কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে। তারা জানায়, তারা এখনও সাহরিন সুলতানাকে ক্লাস নিতে দেখেনি। জাতীয় সংগীত, শারীরিক শিক্ষা ক্লাস সম্পর্কে প্রধান শিক্ষিকাকে জানানো হয়েছে। এক বছর পেরিয়ে গেলেও কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

নিজের বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক সাহরিন সুলতানা জানান, তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ করা হচ্ছে তা পুরোপুরি সত্য নয়। স্কুলের বিভিন্ন কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকায় নিয়মিত ক্লাস নিতে পারেন না তিনি। আর সহকারী শিক্ষকদের দেরিতে আসার ব্যাপারে প্রতিবাদ করায় ওই শিক্ষকরা তার বিষয়ে অসত্য কথা বলছেন।

এ বিষয়ে গজারিয়া উপজেলার সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা (প্রাথমিক) মো. ইসহাক জানান, ঘটনার সত্যতা যাচাই করতে আগামী রোববার তিনি স্কুলটিতে যাবেন।

এ দিকে গজারিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাইফুল ইসলাম জানান, বিষয়টি সম্পর্কে তিনি অবগত হয়েছেন। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে ওই প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে