শজিমেক হাসপাতালে ক্যান্সারের রেডিও থেরাপি আড়াই মাস ধরে বন্ধ

  প্রদীপ মোহন্ত, বগুড়া

২১ এপ্রিল ২০১৭, ১৯:১৭ | অনলাইন সংস্করণ

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের ক্যান্সার বিভাগের রেডিও থেরাপির সরঞ্জাম ‘লিনিয়ার এক্সিলিরেটর’ বিকল হয়ে পড়েছে। আড়াই মাস ধরে এ যন্ত্রটি বিকল থাকায় ক্যান্সারের মতো দূরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্তদের রেডিও থেরাপি দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। যে কারণে দূর-দূরান্ত থেকে আসা রোগি এবং তাঁদের স্বজনদের ফিরে যেতে হচ্ছে।

হাসপাতালে রেজিস্টারের তথ্যে দেখা গেছে, রেডিও থেরাপির জন্য প্রতিদিন গড়ে ৩৫ জন রোগী শজিমেকে আসেন চিকিৎসা নিতে। সেই হিসেবে গত আড়াই মাসে প্রায় আড়াই হাজার রোগি সেবা না পেয়ে ফিরে গেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ক্যান্সার বিভাগের রেডিও থেরাপির সরঞ্জাম ‘লিনিয়ার এক্সিলিরেটর’ বিকল হয়ে পড়ায় রোগিদের ভোগান্তি এখন চরম পর্যায়ে পড়েছে। কারণ আশেপাশের আর কোনো জেলার হাসপাতালে রেডিও থেরাপি করার কোনো সুযোগ নেই। এজন্য ক্যান্সার রোগিদের এখন রাজধানী ঢাকায় ছুটতে হচ্ছে।

শজিমেক হাসপাতালের সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, এই যন্ত্রটি এর আগে একাধিকবার বিকল হয়েছে। সেটি মেরামত করার জন্য টেকনিশিয়ান এসে ঠিক করার কিছুদিন পরেই আবার বিকল হয়ে পড়ে। এবার যন্ত্রটি বিকল হয় গত বছরের ৩ ডিসেম্বর। টেকনিশিয়ানরা জানিয়েছেন, ‘লিনিয়ার এক্সিলিরেটর’ নামের যন্ত্রটি মেরামতে ৭৬ লাখ টাকা খরচ হবে। দুই মাস আগে বিকল হওয়া সরঞ্জামটি মেরামতের জন্য হাসপাতাল প্রশাসনের পক্ষ থেকে গত ৯ ফেব্রুয়ারি সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। কিন্তুু আজ পর্যন্ত সেটি মেরামতের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এর আগে ২০১৫ সালের ১৮ আগস্ট ‘লিনিয়ার এক্সিলিরেটর’ একবার বিকল হয়ে পড়েছিল। তারও এক বছর আগে অর্থাৎ ২০১৪ সালের নভেম্বরে আরও একবার ‘লিনিয়ার এক্সিলিরেটর’ নামের সরঞ্জাম বিকল হয়ে পড়েছিল।

শজিমেক হাসাপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাসুদ আহসান জানান, বিকল হয়ে পড়া ‘লিনিয়ার এক্সিলিরেটর’ নামে সরঞ্জামটি মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আশা করা হচ্ছে খুব শিগগিরই সরঞ্জামটি আবারও সচল হবে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে