বৈশ্বিক ব্যাংকিং ব্যবস্থা হ্যাকের পেছনে মার্কিন সরকার

  অনলাইন ডেস্ক

১৫ এপ্রিল ২০১৭, ১৮:৪৭ | আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০১৭, ১৯:১৬ | অনলাইন সংস্করণ

মার্কিন ন্যাশনাল সিকিউরিটি এজেন্সির হেডকোয়ার্টার
বিশ্বের ব্যাংক ব্যবস্থা হ্যাকের পেছনে মার্কিন সরকারের হাত রয়েছে বলে জানিয়েছে গবেষকরা। সম্প্রতি মার্কিন ন্যাশনাল সিকিউরিটি এজেন্সির (এনএসএ) তৈরি করা একটি সফটওয়্যার অনলাইনে প্রকাশ হলে এই তথ্য প্রকাশ পেয়ে যায়। এর মাধ্যমে তারা যেমন বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করেছিল তেমন বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য কালোবাজারে চলে গিয়েছিল। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিবিসি।

শ্যাডো ব্রোকারস নামের এক অনলাইন গ্রুপের ফাঁস হওয়া নথিতে বিশ্বের ব্যাংক ব্যবস্থায় মার্কিন নজরদারির আলামত পাওয়া গেছে। ওই নথিগুলোতে সুইফট সিস্টেমে ঢোকার কোড পাওয়া গেছে বলে দাবি করেছেন সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা।

তারা বলছেন, এই কোডগুলো ব্যবহার করে সুইফট সিস্টেমে ঢুকে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এনএসএ মধ্যপ্রাচ্য ও লাতিন অঞ্চলের ব্যাংকগুলোর লেনদেন পর্যবেক্ষণ করেছে। নথি বিশ্লেষণ করে সাইবার বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ফাঁস হওয়া নথিগুলোতে থাকা কোডগুলো ব্যবহার করে বাংলাদেশ ব্যাংকে ক’দিন আগে সংঘটিত সাইবার ডাকাতির মতো ঘটনাও ঘটানো সম্ভব।

বিশেষজ্ঞদের মতে, অনলাইনের কালাবাজারে ওই সফটওয়্যারগুলোর আনুমানিক মূল্য প্রায় দুই মিলিয়ন ডলারের বেশি।

গবেষকদের মতে, মার্কিন সরকার ওই সফটওয়্যারের মাধ্যমে সুইফট গ্লোবাল ব্যাংকিং সিস্টেমের মাধ্যমে গোপনে বিশ্বের বিভিন্ন ব্যাংকের অর্থনৈতিক লেনদেন পর্যবেক্ষন করে।  

ফাঁস হওয়া কয়েকটি নথিতে এনএসএ-র সীল দেখা যায়। তবে সুইফট এবং সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান এইসব দাবিকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছেন।

এবিষয়ে বেলজিয়ামভিত্তিক অনলাইন সিকিউরিটি প্রতিষ্ঠান সুইফট জানায়, “আমাদের কাছে এমন কোনো তথ্য প্রমাণ নেই যে নির্দিষ্ট কর্তৃপক্ষের বাইরে কেউ আমাদের নেটওয়ার্ক অথবা মেসেজিং সার্ভিস ব্যবহার করেছে।”

ফাঁস হওয়া নথির সকল রিপোর্ট যদি সত্যি হয় তাহলে ২০১৩ সালে এডওয়ার্ড স্নোডেনের তথ্য ফাঁস ঘটনার পর এটা হতে যাচ্ছে এনএসএ’র জন্য আরেক বড় ধাক্কা। স্নোডেন এক টুইট বার্তায় এই ঘটনাকে ‘মাদার অব অল এক্সপ্লয়েটস’ বলে অভিহিত করেছেন।

সুইফট গত বছর আরেকটি ঘটনায় গুরুত্বপূর্ণ হ্যাকিংয়ের শিকার হয়। সে সময় বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ৮১ মিলিয়ন ডলার চুরি হয়ে যায়। এরপর থেকে প্রতিষ্ঠানটির নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে সমালোচনা রয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে