৫১ নম্বর পেয়েছিলেন এভ্রিল, মিথ্যের কারণে বাদ মুকুট

  অনলাইন ডেস্ক

০৪ অক্টোবর ২০১৭, ২০:০০ | অনলাইন সংস্করণ

শীর্ষ নম্বর পেয়েও তথ্য গোপন করায় মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় যেতে পারছেন না জান্নাতুইল নাঈম এভ্রিল। 'মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ' এর চূড়ান্তপর্বে বিচারকদের নিকট কে কত নম্বর পেয়েছিলেন? আজ বিকেলে রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে এসব তথ্য সামনে এনেছে আয়োজকেরা। আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয় সেদিন জান্নাতুল নাঈম পেয়েছিলেন ৫১ নম্বর, জেসিয়া ইসলাম পেয়েছিলেন ৪৮, জান্নাতুল সুমাইয়া পেয়েছিলেন ৪৭ নম্বর।

শুক্রবার জান্নাতুল নাঈমকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণার পর প্রশ্ন ওঠে আয়োজকদের বিবেচনাতেই তাকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়। এক্ষেত্রে বিচারকদের নম্বরকে উপেক্ষা করা হয় বলে খবরে প্রকাশ। এরপর খবর পাওয়া যায় চ্যাম্পিয়ন জান্নাতুল নাঈম বিয়ের বিষয় গোপন করেছেন। বিষয়টি দেশের সকল গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়। এরপরে আজ বুধবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলন ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে জান্নাতুল নাঈমকে 'তথ্য গোপন' করায় তাঁকে বাদ দেওয়া হয়েছে আয়োজকেরা জানিয়েছে। ফলে জেসিয়া ইসলাম ও জান্নাতুল সুমাইয়া হিমি- এ দু'জনের মধ্যে একজন যাবেন মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায়।

আগামী ১৪ নভেম্বর চীনের সানাইয়া শহরে অনুষ্ঠিত হবে ৬৭তম মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতা। বাংলাদেশে এবারই প্রথম ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’-এর ফ্র্যাঞ্চাইজি নিয়ে আসে দুটি প্রতিষ্ঠান অন্তর শোবিজ ও অমিকন এন্টারটেইনমেন্ট। গত শুক্রবার রাতে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতা হয়। ওই রাতে মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের সেরা ১০ জনের মধ্য থেকে চ্যাম্পিয়নের নাম ঘোষণার জন্য মাইক্রোফোন হাতে দাঁড়িয়ে ভারতীয় উপস্থাপিকা শিনা চৌহান প্রথমে প্রথম রানার-আপের নাম ঘোষণা করেন।

এরপর বিচারকদের দেওয়া চিরকুট দেখে ঘোষণা করেন ‘উইনার ইজ হিমি’, অর্থাত্ ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ জান্নাতুল সুমাইয়া হিমি। কিন্তু তত্ক্ষণাত অন্তর শোবিজের স্বত্বাধিকারী স্বপন চৌধুরী মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে বলেন, চ্যাম্পিয়নের নাম ভুল ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি আর কোনো ভূমিকায় না গিয়ে ঘোষণা করেন চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন জান্নাতুল নাঈম, প্রথম রানার-আপ জেসিয়া ইসলাম ও দ্বিতীয় রানার-আপ জান্নাতুল সুমাইয়া হিমি।

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে