চলে গেলেন লাকী আখন্দ

  বিনোদন ডেস্ক

২১ এপ্রিল ২০১৭, ১৯:২৫ | আপডেট : ২১ এপ্রিল ২০১৭, ২০:২৯ | অনলাইন সংস্করণ

না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন আধুনিক বাংলা সঙ্গীতের কিংবদন্তি শিল্পী, সুরকার ও সংগীত পরিচালক লাকী আখন্দ (ইন্না লিল্লাহি... রাজিউন)। শুক্রবার পুরান ঢাকার নিজ বাসায় সন্ধ্যা ৬টার দিকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। রাতে আমাদের সময়-কে খবরটি নিশ্চিত করেন লাকী আখন্দের মেয়ে মাম্মিন্তি আখন্দ।

অনেক দিন ধরেই মরণব্যাধী ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করছিলেন লাকী আখন্দ। ছয় মাসের চিকিৎসা শেষে ২০১৬ সালের ২৫ মার্চ থাইল্যান্ডের ব্যাংকক থেকে দেশে ফেরেন তিনি। সেখানে কেমোথেরাপি নেওয়ার পর শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয় তার। একই বছরের জুনে আবারও থেরাপির জন্য ব্যাংকক যাওয়ার কথা থাকলেও আর্থিক সংকটের কারণে পরে আর সেখানে যাওয়া হয়ে উঠেনি লাকীর। অসুস্থতার প্রথম থেকেই লাকী আখন্দ ও তার পরিবার কোনও রকম আর্থিক সহযোগিতা গ্রহণের বিষয়ে বেশ কঠোর ছিলেন। তবে ব্যাংককে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় এই সংগীতকারের চিকিৎসার জন্য পাঁচ লাখ টাকা সহায়তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাষ্ট্রীয় ভালোবাসা হিসেবে সেটি তিনি গ্রহণ করেছেন স্বাচ্ছন্দে।

শৈশবেই সংগীতশিল্পী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। চৌদ্দ বছর বয়সে এইচএমভি পাকিস্তানে সুরকার হিসেবে তালিকাভুক্ত হন। সুরকার হিসেবে আরো কাজ করেছেন এইচএমভি ভারত এবং স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে। স্বাধীনতার পর পর নতুন উদ্যমে বাংলা গান নিয়ে কাজ শুরু করেন লাকী। তার নিজের সুর করা গানের সংখ্যা দেড় হাজারেরও বেশি।

লাকী আখন্দের উল্লেখযোগ্য গানের মধ্যে রয়েছে- ‘আমায় ডেকো না’, ‘এই নীল মনিহার’, ‘কবিতা পড়ার প্রহর এসেছে’, ‘ভালোবেসে চলে যেও না’, ‘যেখানে সীমান্ত তোমার’, ‘লিখতে পারি না কোনও গান’ প্রভৃতি।

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে