নওয়াজের আসনে স্ত্রী কুলসুমের জয়

  অনলাইন ডেস্ক

১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৯:৫২ | আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১:৪১ | অনলাইন সংস্করণ

পানামা পেপারসে আর্থিক কেলেঙ্কারির মামলায় প্রধানমন্ত্রীর পদ হারিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। তার সেই শূন্য আসনে অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনের বেসরকারি ফলাফলে জয় পেয়েছেন তার স্ত্রী কুলসুম নওয়াজ। খবর ডন, বিবিসি ও রয়টার্সের।

খবরে বলা হয়, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর চেয়ে ১৪ হাজার ১৮৮ ভোট বেশি পেয়ে জয়লাভ করেছেন পাকিস্তান মুসলিম লীগের (পিএমএল-এন) কুলসুম নওয়াজ। তিনি ৬১ হাজার ২৫৪টি ভোট পেয়েছেন। আর তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) ইয়াসমিন রশিদ পেয়েছেন ৪৭ হাজার ৬৬টি ভোট।

গতকাল রোববার ২২০টি কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন ভোটাররা। এর মধ্যে ১০৩টি পুরুষ ভোটারদের জন্য, ৯৮টি নারী ভোটারের জন্য এবং ১৯টি কেন্দ্র ব্যবহার করা হচ্ছে নারী-পুরুষ যৌথভাবে ভোট দেওয়ার জন্য। এ আসনের ভোটার সংখ্যা ছিল ৩ লাখ ২১ হাজার ৭৮৬।

পাকিস্তানের ইতিহাসে এবারই প্রথমবারের মতো বায়োমেট্রিক ভোটার ভেরিফিকেশন মেশিন ব্যবহার করা হয়। ৩০ হাজারের মতো ভোটার বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে ভোট দেওয়ার সুযোগ পান। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সদস্যরা এ ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া তত্ত্বাবধান করে।

পাকিস্তান জাতীয় সংসদের অন্তর্গত লাহোর ১২০ নম্বর আসন থেকে পিএমএল(এন) প্রার্থী হিসেবে লড়েছিলেন কুলসুম নওয়াজ। ফলাফল ঘোষণা হতেই তিনি এগিয়ে যান। জয় নিশ্চিত হতেই উল্লাসে ফেটে পড়েন সমর্থকরা।

গতকাল সন্ধ্যায় ফল ঘোষণার পর শরিফ-কুলসুম দম্পতির মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ দলের সমর্থকদের উদ্দেশে বলেন, এই ফলাফলে প্রমাণিত হলো নওয়াজ শরিফকে অযোগ্য ঘোষণা করে সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া সিদ্ধান্ত জনগণ প্রত্যাহার করেছে। আদালতের মুখপাত্রদেরও প্রত্যাখ্যান করেছে।

কুলসুম নওয়াজের জয়ের পর দলীয় নেতা সাদ রফিক জানিয়েছেন, এই রায় প্রমাণ করল জনগণ পানামা পেপারসে মামলায় নওয়াজ শরিফকে পদচ্যুত করা মেনে নেননি। আমরা লাহোরের জনগণকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

ক্যান্সারে আক্রান্ত কুলসুম নেওয়াজ বর্তমানে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে চিকিৎসাধীন আছেন। নেওয়াজ আদালতের নির্দেশে অযোগ্য হয়ে ক্ষমতা ছাড়ার পর প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন শাহিদ খাকান আব্বাসী।

উল্লেখ্য, গত ২৮ জুলাই পানামা পেপারস কেলেঙ্কারি মামলায় অভিযুক্ত হয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ে প্রধানমন্ত্রী পদে অযোগ্য ঘোষিত হওয়ার পর পদত্যাগ করেন নওয়াজ শরিফ। এরপর তার আসনটি শূন্য হয়। এর আগে ক্ষমতাসীন পিএমএলএনের প্রার্থী হিসেবে নওয়াজের ভাই পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের এ আসনে নির্বাচন করার কথা ছিল। পরে শাহবাজ নিজেই জানান, বেগম কুলসুম নওয়াজই নির্বাচন করবেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে