যুক্তরাজ্যে নির্বাচনী আমেজ শুরু

  হেফাজুল করিম রকিব,লন্ডন থেকে

২১ এপ্রিল ২০১৭, ১৯:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে গত মঙ্গলবার হুট করে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দেওয়া মাত্রই যুক্তরাজ্যে নির্বাচনী আমেজ শুরু হয়ে যায়। পরদিন বুধবার এমপিরা ভোট দিয়ে ৮ জুন সাধারণ নির্বাচন আয়োজনের বিষয়টি অনুমোদন করেন। আর গতকাল থেকে পুরোদমে প্রচারে নেমে গেছে দলগুলো। অপরদিকে প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে নির্বাচনী প্রচারাভিযানের সময় অন্য প্রার্থীদের সঙ্গে টিভি বিতর্কে অংশ না নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। তার এমন ঘোষণায় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী ভয় পাচ্ছেন। এ ছাড়া নজরদারি এড়াতে চান। অন্যদিকে লেবার লিডার সমালোচক ও গণমাধ্যমকে সতর্ক করে বলেছেন, তার জয় পাওয়ার সম্ভাবনা এখনই তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেয়া উচিত হবে না ।  

নির্বাচনকে সামনে রেখে ইতিমধ্যে দু’পক্ষ একে অপরকে আক্রমণ করা শুরু করেছে। সরকারি দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে চায়। তেরেসা মেও বিরোধী দলগুলোর ‘বিশৃঙ্খল জোট’ গঠনের ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে বুধবারের পার্লামেন্ট অধিবেশন শেষ করেই ছুটে যান বিরোধী দল লেবারের দখলে থাকা বোলটনে। সেখানে তিনি নির্বাচনের প্রচার শুরু করেন।  প্রচারণায় সময় তিনি বলেন, বৃটেন গড়া ও নিরাপদ ভবিষৎ নিশ্চিত করতে কনজারভেটিভ পার্টির দরকার । এই নির্বাচনের মাধ্যমে জনগন ব্রেক্সিট ইস্যুতে আলোচনা করার জন্য শক্তিশালী নেতৃত্ব পাবে ।

লেবার দলের নেতা জেরেমি করবিন বলেছেন, ৮ জুনের নির্বাচনে জয়ী হলে তিনি রাজনীতির রীতি বদলে দেবেন। গতকাল বৃহস্পতিবার লন্ডনে নির্বাচনী প্রচারের সূচনা ভাষণে করবিন এ ঘোষণা দেন।  

প্রকৃতপক্ষে এ নির্বাচন হলো ‘জনগণের অধিকার বনাম প্রভাবশালীদের স্বার্থ রক্ষার’ নির্বাচন। ধনীদের কাছ থেকে ‘ন্যায্য’ কর আদায়ের ঘোষণা দিয়ে  স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টি লিডার নিকোলা স্টারজোন বলেন, তারা ক্ষমতায় এলে দেশের সাধারণ মানুষের অধিকার নিশ্চিত করতে কাজ করবেন।

ইয়োগভ/টাইমস-এর যৌথ জনমত জরিপে দেখা গেছে, তেরেসা মে’র দলের সমর্থন ৪৮ শতাংশের ঘরে। লেবারের সমর্থন মাত্র ২৪ শতাংশ। লিবারেল ডেমোক্রেটরা ১২ ও ইউকিপ ৭ শতাংশ সমর্থন পেয়েছে। গত নয় বছরে এটি কনজারভেটিভ দলের সবচেয়ে ভালো ফল।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে