ইসলাম গ্রহণ করে মালয় রাজকন্যাকে বিয়ে

  অনলাইন ডেস্ক

১৮ আগস্ট ২০১৭, ১২:১৩ | অনলাইন সংস্করণ

নেদারল্যান্ডসের এক যুবক ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার পর বিয়ে করলেন মালয়েশিয়ার জোহর রাজ্যের সুলতান ইব্রাহিমের একমাত্র কন্যা প্রিন্সেস তুংকু তুন আমিনা মায়মুনা ইস্কান্দারিয়াকে।

চোখ ধাঁধানো আর জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে গত সোমবার আমিনা মায়মুনা ইস্কান্দারিয়া বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন ২৮ বছর বয়সী ডেনিস যুবক মুহাম্মদ আবদুল্লাহর সঙ্গে। জোহর রাজ্যের রাজধানী জোহর বাহরুতে রাজপ্রাসাদে তাদের বিয়ে হয়।

রাজকন্যার স্বামী মুহাম্মদ আবদুল্লাহ এক ডাচ ব্যবসায়ীর পুত্র এবং তার পেশাও ব্যবসা। প্রিন্সেস আমিনা তার স্বামীর চেয়ে তিন বছরের বড়। তার বয়স ৩১ বছর এবং স্বামী মোহাম্মদ আবদুল্লাহর বয়স ২৮ বছর।

তিন বছর আগে তাদের দেখা হয় এবং প্রণয়ে জড়িয়ে পড়েন। প্রিন্সেসকে কাছে পেতে ২০১৫ সালে নিজ ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম গ্রহণ করেন মোহাম্মদ আবদুল্লাহ। এরপর তাদের বিয়ের আলোচনা শুরু হয়।

রাজকন্যার বিয়ে উপলক্ষে রাস্তাগুলো রঙবেরঙের পতাকায় সাজানো হয়েছিল। কয়েকটি সার্বজনীন ঘরোয়া অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। বিয়ের মূল অনুষ্ঠানে ১২শ’রও বেশি অতিথি উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ ব্যক্তিত্বদের পাশাপাশি জনসাধারণের উপস্থিতি ছিল সবচেয়ে বেশি। জোহর বাহরু শহরের দাতারান বান্দারায়া সিটি স্কয়ারে বিশাল পর্দায় প্রজেক্টরের মাধ্যমে বিয়ের অনুষ্ঠান সবাইকে দেখার সুযোগ করে দেয়া হয়।

বিয়ের দিন প্রিন্সেসের পরনে ছিল বহুমূল্যের সাদা গাউন এবং দামি দামি অলংকার। স্থানীয় ঐতিহ্য মানতে এ বিয়েতেও দেনমোহর রাখা হয়। তবে পরিমাণ খুবই কম, মাত্র ২২.৫০ রিংগিত (প্রায় ৪২৪ টাকা)।

প্রিন্সেস আমিনার স্বামী মোহাম্মদ আবদুল্লাহর নেদারল্যান্ডসে বাড়ি রয়েছে। তবে তিনি জোহর বাহরুতে ব্যবসা করেন। সেখানে প্রিন্সেসকে নিয়ে থাকবেন তিনি।

মালয়েশিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় জোহর রাজ্যের এই রাজপরিবার খুবই প্রভাবশালী এবং ধনী। তাদের নিজস্ব সেনাবাহিনী রয়েছে।

উল্লেখ্য, মালয়েশিয়ার একমাত্র রাজ্য এটি, যেখানে আলাদা সেনাবাহিনী রয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে