বাস্তুশাস্ত্রেই ঘরে আসবে সুখ-শান্তি!

  অনলাইন ডেস্ক

১১ জানুয়ারি ২০১৭, ১০:৪৪ | অনলাইন সংস্করণ

বাস্তুবিদ্যা হলো এমন একটি বিষয়, যার মাধ্যমে পাওয়া তথ্যউপাত্ত ব্যবহার করে বানানো বা সাজানো যে কোন স্থাপনা এনে দিতে পারে সুস্বাস্থ্য ও শুভফল। আর বাস্তুশাস্ত্র হলো এক সুপ্রাচীন স্থাপত্যবিষয়ক ফলিত ও কারিগরি বিদ্যা। সোজা ভাষায় বললে, বাস্তুশাস্ত্র হলো সুখী গৃহকোণের ‌‘মূলমন্ত্র’। আপনি যে ঘরে থাকবেন সেই ঘর কেমন হবে? কোথায় কী রাখবেন, কী রাখবেন না? এটা হলো তার গাইডলাইন। বাস্তুশাস্ত্র অনেকে মানেন, অনেকে আবার মানেন না। যারা মানেন, তারা এই বিশ্বাস থেকে মানেন যে, এগুলো মেনে চললে সুখী হবে গৃহকোণ। ঘরে সুখ-শান্তি-সমৃদ্ধি আসবে।

তবে বাস্তুশাস্ত্র নিয়েও মানুষের মনে বেশ কিছু ভ্রান্ত ধারণা প্রচলিত রয়েছে। এবার জেনে নিন সেগুলো-

# উত্তর-পূর্ব দিকে বাড়ির প্রবেশপথ হলে সবচেয়ে ভালো। একা একদম ভুল কথা। কেননা বাড়ির সুখ-সমৃদ্ধি, প্রবেশপথের দিকের উপর নির্ভর করে না।

# দক্ষিণ-পূর্ব দিকে বাড়ির প্রবেশপথ হচ্ছে ‘অগ্নিকুণ্ড’। আর সেই কারণে মূল প্রবেশপথ হতে পারে না। হ্যাঁ, বাস্তুর নিয়ম অনুযায়ী দক্ষিণ-পূর্ব দিকটি অগ্নিকুণ্ডের দিক হলেও তার সঙ্গে বাড়ির প্রবেশপথের কোনও সম্পর্ক নেই। তাই অযথা ভীত হওয়ার কোনও প্রশ্ন নেই।

# বাড়ির দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে কোনও গভীর গর্ত বা কুয়ো থাকবে না। এটাও একটি ভ্রান্ত ধারণা। বাস্তবের সঙ্গে যার কোনও যোগ নেই।

# দক্ষিণ দিকে প্রবেশপথ হলে নাকি অমঙ্গল এবং বাড়ির মালিকের জন্য দুর্ভাগ্য বয়ে আনবে। এটাও একদম ভুল। ভুল ধারণা ভাঙার জন্য জানিয়ে রাখা ভালো যে মুম্বাইতে অমিতাভ বচ্চনের বাড়ি থেকে বিখ্যাত ওবেরয় হোটেল, সবার প্রবেশপথই দক্ষিণে।

# বাড়ির উত্তর-পূর্বদিকে যেন শৌচালয় না হয়।

# সুখী গৃহকোণের রান্নাঘর নাকি দক্ষিণ-পূর্বদিকেই হতে হবে। আসল কারণটা সুখী গৃহকোণ নয়। আসল কারণটা হচ্ছে রান্নার ধোঁয়া। বাইরের হাওয়ায় যেন তা ঘরের ভিতরে না ঢোকে।

# বেসমেন্ট বা বাড়ির নিচে ফাঁকা জায়গা দুর্ভাগ্য বয়ে আনে।

# বাড়ির কাছাকাছি বা চৌহদ্দির মধ্যে পিপুল গাছ একদম নয়।

#বাড়ির মূল প্রবেশপথের উল্টোদিকে যদি নিচে নামার কোনও সিঁড়ি থাকে, তাহলে ঘরের সমৃদ্ধি স্থিতিশীল হয় না।

# যেকোন ত্রিকোণ প্লট অমঙ্গলের বার্তাবাহক।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে