শুধু পড়াশুনা নয়, কর্মক্ষেত্রেও সাফল্য আনে চিন্তা!

  অনলাইন ডেস্ক

১৮ মে ২০১৭, ১২:০১ | আপডেট : ১৮ মে ২০১৭, ১২:২৪ | অনলাইন সংস্করণ

প্রত্যহিক জীবনে আমরা কম-বেশি সবাই নানা বিষয় নিয়েই চিন্তিত থাকি। এ সময় আমাদের মধ্যে অনেক স্ট্রেস ও উৎকন্ঠা কাজ করে। পরবর্তীতে এটি আমাদের মানসিক স্বাস্থ্যের উপরও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। তাই চিন্তিত দেখলেই বন্ধু, সহকর্মী, আত্মীয় কিংবা আপনজন আমাদের চিন্তা করতে নিষেধ করেন। তারা সবসময় সান্ত্বনা দিয়ে বলেন, ‌যা হওয়ার তা হয়ে গেছে। আর চিন্তা করে কি লাভ বল? সব ঝেড়ে ফেল। তবে এই চিন্তা নিয়েই এবার আশার কথা শুনিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলেছেন, চিন্তা সবসময় যে আমাদের ক্ষতি করে এমনটি নয়, বরং এর ভাল গুণও আছে।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, যারা বেশি চিন্তা করেন তারা স্কুল, কলেজের পরীক্ষাই শুধু নয়, কর্মক্ষেত্রেও ভাল ফল করেন। কঠিন পরিস্থিতিতে তারা তথ্যের গভীরে পৌঁছতে চান এবং অনেক সফলভাবে সমস্যার সমাধান করতে পারেন।

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া-রিভারসাইডের সাইকোলজির অধ্যাপক কেট সুইনি জানাচ্ছেন, চিন্তা আমাদের জীবনের বিভিন্ন ট্রমা কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করে। যা মেনে নিতে পারছি না কিংবা তা গ্রহণ করতে পারছি না, সেই পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে এবং অবসাদের মোকাবিলা করতে সাহায্য করে চিন্তা।

একইসঙ্গে চিন্তা স্বাস্থ্যেরও কিছু উন্নতি করতে পারে। সাহায্য করতে পারে অসুস্থতা কাটিয়ে উঠতেও, বলছিলেন ওই বিশেষজ্ঞ।

সুইনি বলেন, চিন্তা করাকে আমরা নেগেটিভ দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখি। কিন্তু সব রকম চিন্তাই ক্ষতিকারক নয়। চিন্তা আমাদের উদ্দীপ্ত করতে পারে, আবেগ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।

চিন্তা কীভাবে আমাদের উপকার করে? এ ব্যাপারে সুইনি জানাচ্ছেন, প্রথমত, চিন্তা আমাদের সচেতন করে দেয় যে পরিস্থিতি গুরুতর এবং এর মোকাবিলা করতে কিছু করা উচিত। তথ্য খুঁজে বের করা, বিচার করা ও সিদ্ধান্ত নেওয়ার কাজে আবেগকে ব্যবহার করে থাকি আমরা।

দ্বিতীয়ত, কোন বিষয় নিয়ে চিন্তা সেই বিষয়টা মনের মধ্যে বারবার ঘুরপাক খেতে থাকে। সেই অস্বস্তিকর অনুভূতি কাটানোর জন্য আমরা উপায় খুঁজে বের করি। এক্ষেত্রে কেবল চিন্তাই আমাদের উদ্দীপ্ত করে ও মুড ভাল করে।

সোশ্যাল অ্যান্ড পারসোনালিটি সাইকোলজি কম্পাসে অধ্যাপক কেট সুইনির ওই গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে।  

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে