advertisement
advertisement

ভেড়া ভেবে কিনে খেলেন গরুর মাংস, প্রায়শ্চিত্তের জন্য চাইলেন ক্ষতিপূরণ

১৪ মার্চ ২০১৯ ২২:৫৩ | আপডেট: ১৪ মার্চ ২০১৯ ২২:৫৩

দোকন থেকে ভেড়ার মাংস কিনেছিলেন জসবিন্দর পাল। কিন্তু বাড়ি গিয়ে রান্নার পর খেয়ে বুঝলেন তা গরুর মাংস ছিল। অজান্তে গরুর মাংস খেয়ে ধর্মচ্যূত হয়েছেন বুঝতে পেরে মাংসের দোকানে ফিরে যান তিনি। প্রতারণার জন্য চান ক্ষতিপূরণ।এমনকি প্রায়শ্চিত্তের জন্য ভারত সফরের পুরো খরচ আদায় করতে আদালতের দ্বারস্থ হন তিনি।

ঘটনাটি নিউজিল্যান্ডের। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ব্লেনহেইম শহরের কাউন্টডাউন সুপারস্টোর থেকে ভেড়ার মাংস কিনেছিলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্যবসায়ী জসবিন্দর পাল। তারপরই এই ঘটনাটি ঘটে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘ডেইলি মিরর’ জানিয়েছে, মাংস খাওয়ার পর জসবিন্দর যখন বুঝলেন তাকে প্রতারণা করে গরুর মাংস দেওয়া হয়েছে। তিনি সঙ্গে সঙ্গেই ওই দোকানে গিয়ে চড়াও হন মালিকের উপর। তার কাছে ক্ষমা চেয়ে জরিমানা দিতে বলেন। দোকানীও তার কাছে ক্ষমা চেয়ে ২০০ ডলার ক্ষতিপূরণ দেওয়ার প্রস্তাব দেয়। কিন্তু তিনি নাছড়বান্দা। সোজা জানিয়ে দেন, অজান্তে ভুল করার জন্য ভারতে গিয়ে প্রায়শ্চিত্ত করা ছাড়া তার আর কোনো উপায় নেই। তাই তাকে দেড় মাসের ভারত সফরের পুরো খরচ দোকান কর্তৃপক্ষকে দিতে হবে।

কিন্তু ভারত সফরের জন্য জসবিন্দর যে অর্থ দাবি করেন, তা দিতে গেলে ওই সুপারস্টোরের পুরো ব্যবসা বন্ধ করে দিতে হবে। তাই কর্তৃপক্ষ তাকে সে পরিমান অর্থ দিতে অপরাগতা প্রকাশ করে। বাধ্য হয়ে বিষয়টি নিয়ে আদালতে আবেদন করেন জসবিন্দর। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে তাকে ২০০ ডলার ক্ষতিপূরণ দিতে চাইলেও নিজের সিদ্ধান্তে অটল রয়েছেন এই ভারতীয়।

উল্লেখ্য, নিউজিল্যান্ডে কোনো সরকারি ধর্মের অস্তিত্ব নেই। দেশের ৪৮% খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী হলেও ৪২% কোনো ধর্মে বিশ্বাস করেন না বলে সাম্প্রতিক সমীক্ষায় জানা গিয়েছে। তবে সেই দেশের জনসংখ্যার ৬% হিন্দু ধর্মাবলম্বী বলেও জানা গিয়েছে।