advertisement
advertisement

নির্বাচন এলে দেশ যুদ্ধক্ষেত্রে পরিণত হয় সিইসি

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
১৫ মার্চ ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৫ মার্চ ২০১৯ ০৯:১০

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা বলেছেন, উন্নত দেশে সম্পূর্ণ নিয়ম ও শিষ্টাচারের মধ্য দিয়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেসব দেশের জনগণ ভোটের দিন কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিয়ে আসেন। বিকালে ফল ঘোষণা করা হয়। সবাই সে ফল মেনে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রেখে কাজ করেন। আর আমাদের দেশে নির্বাচন এলে নির্বাচন এলে দেশ যুদ্ধক্ষেত্রে পরিণত হয়।

পুলিশ, বিজিবি, সেনাবাহিনী ও আনসার বাহিনী যেন যুদ্ধ ঠেকাতে মাঠে নামে। একটা গণতান্ত্রিক দেশে এমন পরিস্থিতি কাম্য নয়। সবাইকে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রেখে নির্বাচন সম্পন্ন করা উচিত।

গতকাল বিকালে মৌলভীবাজারে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন। পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দ্বিতীয় ধাপে ভোটগ্রহণে সব ভোটার ও প্রার্থীর এজেন্টদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার বিষয় নিয়ে সিইসি বলেন, কোনো এজেন্টকে যেন কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া না হয়, সে ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ভূমিকা রাখতে হবে। নির্বাচনে আমরা শুধু স্থানীয় প্রশাসনকে কিছু নির্দেশনা দিয়ে থাকি।

তারা নির্বাচন পরিচালনা করেন। প্রশাসনের কর্মকর্তাদের ডি-সেন্ট্রালাইজ করে দায়িত্ব দেওয়া হয়। সুতরাং একটা সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য তাদের আন্তরিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। নির্বাচনে সাংবাদিকদের দায়িত্ব পালনে মোবাইল ফোনে ছবি ও ভিডিও ধারণে নিষেধাজ্ঞার ব্যাপারে এক প্রশ্নের জবাবে নূরুল হুদা বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির কল্যাণে এখন অনেক সাংবাদিক ক্যামেরার বদলে মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন। কিন্তু এর একটা খারাপ দিক হলো ফেসবুকে লাইভ করে রিউমার ছড়ানো। তবে পেশাগত পরিচয় দিয়ে সাংবাদিকরা মোবাইলে ছবি তুলতে পারবেন, এটাকে আমরা শিথিল করে দেব।