advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নারায়ণগঞ্জের ৩ উপজেলায় আওয়ামী লীগে বিদ্রোহী

মিজানুর রহমান,সোনারগাঁও
২২ মার্চ ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২২ মার্চ ২০১৯ ১১:১০
advertisement

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ, আড়াইহজার ও সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের অবস্থান বেশ শক্ত। এ কারণে বেকায়দায় পড়েছেন নৌকার প্রার্থীরা। নির্বাচনী মাঠে বিএনপি না থাকায় বিদ্রোহীরাই নৌকার প্রার্থীদের চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছেন। ফলে নির্বাচন-পূর্ববর্তী ও পরবর্তী সংঘাতের আশঙ্কা রয়েছে তিন উপজেলায়।

তৃণমূল নেতাকর্মী ও সমর্থকদের দাবি, সংঘাত রোধে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের এগিয়ে আসা উচিত। চতুর্থ ধাপে নারায়ণগঞ্জের তিন উপজেলার নির্বাচন ৩১ মার্চ। বিএনপি এ নির্বাচনে অংশ না নেওয়ায় জয় নিশ্চিত ভেবে অনেকে নৌকা প্রতীক পেতে দৌড়ঝাঁপ করেন। কিন্তু প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পর দলীয় মনোনয়নবঞ্চিতরা বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়ে গেছেন। রূপগঞ্জে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. শাহজাহান ভূইয়া ও বিদ্রোহী প্রার্থী মো. তাবিবুল কাদির তমাল (আনারস)।

ন্যাশনাল পিপলস পার্টির প্রার্থী এস আলম (আম)। আড়াইহাজারে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মুজাহিদুর রহমান হেলো সরকার (নৌকা) ও বিদ্রোহী প্রার্থী মোহাম্মাদ ইকবাল হোসেন মোল্লা (আনারস)। সোনারগাঁওয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোশারফ হোসেন (নৌকা) ও বিদ্রোহী প্রার্থী মাহফুজুর রহমান কালাম (ঘোড়া)। বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় তিন উপজেলাতেই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মাঝে বিভক্তি সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে সবচেয়ে বেশি আলোচনায় সোনারগাঁও উপজেলা। সোনারগাঁওয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী মাহফুজুর রহমান কালামকে সমর্থন দিয়েছে জনপ্রতিনিধি ঐক্য ফোরাম। স্থানীয় পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ থেকে নির্বাচিত মেয়র, কাউন্সিলর, চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের নিয়ে গঠিত এ ফোরামের নেতৃত্বে রয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা।

এরই মধ্যে এ উপজেলার আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোশারফ হোসেন স্থানীয় এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলেছেন। তবে সাধারণ ভোটাররা জানান, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে যোগ্যতার মাপকাঠিতেই তারা প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন। অন্যদিকে দ্বন্দ্ব-সংঘাতে আশঙ্কায় নড়েচড়ে বসেছে স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে আগে থেকেই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও সমর্থকদের সতর্ক করছেন তারা। জাল ভোট কিংবা কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন সোনারগাঁও থানার ওসি মনিরুজ্জামান মনির।

advertisement