advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বৈশাখী শাড়ি পছন্দ না হওয়ায়...  

নিজস্ব প্রতিবেদক,রংপুর
১৫ এপ্রিল ২০১৯ ২১:০৯ | আপডেট: ১৫ এপ্রিল ২০১৯ ২১:০৯

পয়লা বৈশাখ উপলক্ষে মেয়ের জন্য শাড়ি এনেছিলেন বাবা। সেই শাড়ি পছন্দ না হওয়ায় ১২ বছরের কিশোরী সৃষ্টি খাতুন আত্মহত্যার করেছে।  

গতকাল রোববার রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের চিথলী দক্ষিণপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মিঠাপুকুরের বড় হযরতপুর ইউনিয়নের সেরুডাঙা গ্রামের বাসিন্দা শফিকুর রহমান পেশায় একজন দলিল লেখক। সম্প্রতি তিনি দুর্গাপুর ইউনিয়নের চিথলী দক্ষিণপাড়া গ্রামে মেয়ের বিদ্যালয় সংলগ্ন একটি ভাড়া বাসায় ওঠেন। তার মেয়ে সৃষ্টি খাতুন জীবনপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ে।  

বাবার কাছে বৈশাখী জামার জন্য বায়না ধরে সৃষ্টি খাতুন। পরে পয়লা বৈশাখের আগের রাতে মেয়ের জন্য নতুন শাড়ি কিনে আনেন শফিকুর। পয়লা বৈশাখের সকালে ওই শাড়ি দেখে পছন্দ হয়নি সৃষ্টির। তাই গতকাল সকাল থেকেই তাকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। দুপুরে অনেক খোঁজাখুঁজির পর শয়ন কক্ষের দরজা ভেঙে ঝুলন্ত অবস্থায় সৃষ্টির লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে তার মরদেহ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে দাফন করা হয়েছে। 

বড় হযরতপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান রুস্তম আলী মণ্ডল জানান, বৈশাখী মেলা উপলক্ষে মেয়েরর বাবা একটি শাড়ি এনেছিল। কিন্তু শাড়িটি মেয়ের পছন্দ না হওয়ায় গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে, যা কারও কাম্য ছিল না।

মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাফর আলী বিশ্বাস বলেন, আত্মহত্যা নিয়ে কোনো সন্দেহ না থাকায় অতটুকু বাচ্চার মরদেহ ময়নাতদন্ত করা হয়নি। সব মহলের সঙ্গে আলোচনা করে মরদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।