advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রেম প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রীকে হত্যা

গাজীপুর প্রতিনিধি
১৮ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০১৯ ০১:২৪

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় গতকাল বুধবার দিনেদুপুরে গাজীপুরের কোনাবাড়ীতে কলেজছাত্রের ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন এক কলেজছাত্রী। অভিযুক্ত কলেজছাত্রকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় জনতা। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে সেই রক্তমাখা ছুরি।

ঘটনাটি যেন আড়াই বছর আগে এমসি কলেজের পুকুরপাড়ে সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী খাদিজা বেগম নার্গিসকে চাপাতি দিয়ে কোপানোর সেই দৃশ্যকেই মনে করিয়ে দিল।

advertisement

নিহত শারমীন আক্তার লিজা কোনাবাড়ীর মধ্য আমবাগ এলাকার সফিকুল ইসলামের মেয়ে এবং স্থানীয় ক্যামব্রিজ কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। আর ঘাতক মোস্তাকিন রহমান জালামার্কেট এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে। সে স্থানীয় লিংকন কলেজের শিক্ষার্থী।

প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতের স্বজনরা জানায়, দীর্ঘদিন ধরেই লিজাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল অভিযুক্ত মোস্তাকিন। কিন্তু তা প্রত্যাখ্যান করায় প্রতিশোধের নেশায় বুধবার দুপুরে মোস্তাকিন কোনাবাড়ীর কাঁচাবাজার এলাকায় লিজার পথরোধ করে। কিছু বুঝে উঠার আগেই ওই কলেজছাত্রীকে ছুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করে সে। এতে গুরুতর আহত হন লিজা। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উত্তরার বাংলাদেশ মেডিক্যালে নিয়ে যান স্বজনরা। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। তবে হাসপাতালে নেওয়ার পথেই প্রাণ হারান তিনি।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত মোস্তাকিনকে আটকের পর গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে স্থানীয় জনতা। ক্যামব্রিজ কলেজের শিক্ষক আলমগীর পারভেজ জানান, শারমীন আক্তার লিজা একাদশ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা পরীক্ষা দিয়ে এক বান্ধবীর সঙ্গে বাসায় ফিরছিলেন। পথে মোস্তাকিন তাকে গলায় এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে কোনাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক জানান, প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান নাকি পূর্ব শত্রুতার জেরে হত্যাকা-টি ঘটেছে তা এখনো জানা যায়নি। অভিযুক্ত মোস্তাকিনকে রক্তমাখা ছুরিসহ আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় সে একা নাকি আরও কেউ জড়িত, সে বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। পুলিশ পুরো ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছে।