advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

কিশোরগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনায় শিশু খুন

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি
১৮ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০১৯ ০৯:৪০

কিশোরগঞ্জ শহরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ১২ বছরের শিশু মো. সাগরকে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে শহরের রাকুয়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে তাকে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদ, জড়িতদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে তার লাশ নিয়ে গতকাল শহরে মিছিল করে এলাকাবাসী। দুপুরে সওদাগড় এলাকা থেকে মিছিলটি বের হয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। এতে এলাকার কয়েক হাজার নারী-পুরুষ অংশ নেয়। নিহত সাগর শহরের সওদাগড়পাড়ার বকুল মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানিয়েছে, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও এলাকাবাসীর কাছ থেকে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে। কিশোরগঞ্জ মডেল থানার ওসি মো. আবুবকর সিদ্দিক জানিয়েছেন, একটি ইভটিজিংয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে হারুয়া ও সওদাগড়পাড়ার যুবকদের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে শনিবার রাতে হারুয়ার যুবকরা রাকুয়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে সাগরকে একা পেয়ে ছুরিকাঘাত করে। কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে রাত ১২টার দিকে সে মারা যায়।

অন্যদিকে এলাকাবাসী শিশু সাগর হত্যাকাণ্ডের জন্য হারুয়া এলাকার আবু হানিফ ওরফে হাছুসহ ৬ জনকে সরসারি দায়ী করেছেন। একাধিক এলাকাবাসী জানান, শহরের উপকণ্ঠে কাতিয়ারচর এলাকায় কথিত নববর্ষের অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে হারুয়া এলাকারই লাদেন নামে একজনের সঙ্গে মেলার আযোজক হাছুর কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে হাছু লাদেনকে মারধর করলে লাদেনও হাছুকে দেখে নেবে বলে হুমকি দিয়ে চলে আসে। পরবর্তীতে হাছুর লোকজন লাদেনকে মারতে এসে দেখতে একই রকম সাগরকে ছুরিকাঘাত করে।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে গভীর রাতে হারুয়া এলাকায় দুপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া ও দোকান ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে ১১ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। শিশু হত্যার ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন ওসি।