advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

১৭ এপ্রিল যারা পালন করে না তারা মুক্তিযুদ্ধে অবিশ্বাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকা ও মেহেরপুর প্রতিনিধি
১৮ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০১৯ ০৯:৫৮

যারা ১৭ এপ্রিল, ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালন করে না, তারা মুক্তিযুদ্ধেও বিশ্বাস করে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। গতকাল বুধবার ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে মেহেরপুরের মুজিবনগরে আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক জনসভায় তারা এ কথা বলেন।

১৯৭১ সালের এই দিনে বাংলাদেশ ও ভারত সীমান্তবর্তী মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলা গ্রামের আম্রকাননে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে শপথগ্রহণ করে। বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে ওই সরকারের নেতৃত্ব দেন জাতীয় চার নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দীন আহমদ, ক্যাপ্টেন মনসুর আলী ও কামারুজ্জামান।

advertisement

পরে বৈদ্যনাথতলা গ্রামের নামকরণ করা হয় মুজিবনগর। আর দিনটিকে প্রতিবছর যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন করে মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী দল আওয়ামী লীগ। গতকালও বর্ণাঢ্য আয়োজনে মেহেরপুরে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত হয়েছে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য আমির হোসেন আমু বলেন, পৃথিবীতে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশ হবে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার সেই লক্ষ্যে কাজ করছে। বঙ্গবন্ধুর দেওয়া স্বাধীনতা এবং শেখ হাসিনার উন্নয়ন ছাড়া এ দেশে কারও কোনো অবদান নেই।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের নাম তালিকাভুক্ত করে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে কলঙ্কিত করেছিলেন। তার স্ত্রী খালেদা জিয়া ৩০ লাখ শহীদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করে মুক্তিযুদ্ধকে ইতিহাস থেকে মুছে দিতে চেয়েছিলেন।

আওয়ামী লীগের খুলনা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান বলেন, মুজিবনগর দিবস যারা পালন করে না, তারা মুক্তিযুদ্ধ বিশ্বাস করে না। বিএনপি ও তাদের দোসররা কখনো মুজিবনগর দিবস পালন করে না। কারণ তারা স্বাধীনতার শত্রু। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ইঞ্জি. মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে জনসভায় আরও বক্তব্য দেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, আওয়ামী লীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, কার্যনির্বাহী সদস্য রিয়াজুল কবির কাওছার, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ও মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ফরহাদ হোসেন প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য এসএম কামাল হোসেন।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই এমপি, মাগুরা-১ আসনের এমপি সাইফুজ্জামান শিখর, চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের এমপি আলী আজগর টগর, মেহেরপুর-২ আসনের এমপি সাহিদুজ্জামান খোকন প্রমুখ। জনসভা শেষে বিকালে একই মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এর আগে গতকাল ভোরে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে মুজিবনগর স্মৃতিসৌধে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিবসের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। সকাল ৯টায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এর পর অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা শেষে জনসভা অনুষ্ঠিত হয়।