advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

গতি বাড়ানোর চেষ্টায় রুবেল

১৮ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০
আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০১৯ ০৯:২৪

বিশ্বকাপ দলে আছেন। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে তৃতীয়বার বিশ্বকাপ খেলবেন। সব কিছু মিলিয়ে আপনার অনুভূতি জানতে চাই।

রুবেল হোসেন : অবশ্যই ভালো লাগছে। বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পেয়েছি। অনেক খুশি। সুযোগ পেলে চেষ্টা করব নিজের সেরাটা দেওয়ার।

advertisement

ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে একজন পেসার হিসেবে চ্যালেঞ্জ নিতে আপনি কতটা প্রস্তুত?

রুবেল হোসেন : পেস সহায়ক উইকেট হবে। পেসারদের জন্য চ্যালেঞ্জ থাকবে। তবে ভালো জায়গায় বোলিং করলে উইকেট পাওয়া যাবে। আমি চেষ্টা করব, দলের প্রত্যাশা অনুযায়ী বোলিং করার। প্রয়োজনের সময় ব্রেক থ্রু এনে দেওয়ার। ইংলিশ কন্ডিশনে কীভাবে বোলিং করতে হয়, কীভাবে ব্রেক থ্রু করতে হয় সেটি আমাদের জানতে হবে, আর আমরা বোলাররা যদি একটি দলকে কম রানের ভেতর রাখতে পারি বা উইকেট অনুযায়ী ভালো একটি রান ব্যাটসম্যানদের টার্গেট দিতে পারি তা হলে সেটি ভালো হবে।

বিশ্বকাপে আপনার কাছ থেকে নতুন কোনো ডেলিভারি দেখা যাবে কি?

রুবেল হোসেন : না। আমি আসলে আমার শক্তির জায়গাগুলো নিয়ে কাজ করছি। গতি বাড়ানোর চেষ্টা করছি। গত বিশ্বকাপের আগে অনাকাক্সিক্ষত এক ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েছিলেন। এবারের বিশ্বকাপ শুরুর আগে তেমন কিছু নেই।

আপনার ব্যক্তিগত জীবনে এই দুই বিশ্বকাপের মধ্য বিশেষ কোনো পার্থক্য দেখেন কি?

রুবেল হোসেন : গত বিশ্বকাপের আগে আমার সঙ্গে কী হয়েছিল তা আপনারা সকলেই জানেন। আমি মনে করি, মানসিকভাবে স্বস্তি নিয়েই আমি এবারের বিশ্বকাপে অংশ নেব। আমার ম্যাচিউরিটিও অনেক বেড়েছে। নির্দিষ্ট কোনো ব্যাটসম্যানের উইকেট শিকার করার লক্ষ্য আছে কিনা? রুবেল হোসেন : না। ওই রকম কোনো ভাবনা নেই। আমি আমার কাজটা ঠিকমতো করে যেতে চাই। পেসারদের মধ্য মাশরাফির পরেই অভিজ্ঞ আপনি। মোস্তাফিজ, রাহীর প্রথম বিশ্বকাপ। দায়িত্বও তো আপনার বেশি থাকবে?

রুবেল হোসেন : অবশ্যই দায়িত্ব অনেক থাকবে। আমি যদি সুস্থভাবে যেতে পারি তা হলে এটি আমার তৃতীয় বিশ্বকাপ হবে। অবশ্যই অভিজ্ঞতা বেশি থাকবে এবং আছে। আমি চেষ্টা করব যেন এর আগে যে দুটি বিশ্বকাপ খেলেছি এবং বিগত ভালো ম্যাচগুলো আছে সে অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর।

আপনার নিজের ব্যক্তিগত কোনো লক্ষ্য আছে কিনা?

রুবেল হোসেন : আমার স্বপ্ন থাকবে বিশ্বকাপে পাঁচজনের মধ্যে থাকতে পারা! প্রথম পর্বে আমাদের নয়টি ম্যাচ খেলতে হবে। তাই সুযোগ বেশি। অবশ্যই ভালো একটি স্পেল করার আপ্রাণ চেষ্টা করব। বিশ্বকাপে যখন ম্যাচ খেলার সুযোগ পাব তখন চেষ্টা থাকবে ওই ম্যাচটিতে যেন আমি ভালো বোলিং করতে পারি, দলের জন্য যেন ভালো কিছু করতে পারি। দলের প্রয়োজনে উইকেট বের করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করব।

তাসকিন দলে না থাকাটাকে কীভাবে দেখছেন? ওর সঙ্গে কথা হয়েছে কি?

রুবেল হোসেন : তাসকিন অনেক ভালো এবং আমার কাছের একজন ছোট ভাই। তাকে আমি অনেক স্নেহ করি। সে অনেক ভালো বোলার। তবে দলে থাকা বা না থাকা সম্পূর্ণ নির্বাচকদের ওপর নির্ভর করে। অবশ্যই আমার খারাপ লাগছে। সে বিপিএলে অনেক ভালো বোলিং করেছিল। ইনজুরিতে পড়েছে আবার। আসলে এটি ব্যাডলাক ওর জন্য। কাল (মঙ্গলবার) ওর সঙ্গে আমার কথা হয়েছে।