advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রতিশ্রুতি দিয়ে ‘শারীরিক সম্পর্ক’, বিয়ে না করায় ধর্ষণ মামলা

বান্দরবান প্রতিনিধি
১৮ এপ্রিল ২০১৯ ১৭:৪৩ | আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০১৯ ১৭:৪৩
advertisement

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দীর্ঘ দিনের শারীরিক সম্পর্কের পরে বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় প্রেমিকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন প্রেমিকা।

গতকাল বুধবার রাতে বান্দরবানের লামা থানায় এ মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী ওই নারী।

জানা গেছে, লামা উপজেলার এক স্বামী পরিত্যাক্তা নারীর সঙ্গে একই এলাকার নুর মোহাম্মদের দীর্ঘ দিনের প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। ওই নারীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করেন তিনি। গত কয়েকদিন আগে ভুক্তভোগী নারী নুর মোহাম্মদকে বিয়ের কথা বললে তিনি তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানান। পরে ওই নারী তার প্রেমিকের বিরুদ্ধে লামা থানায় ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন।

এর আগে ১৬ এপ্রিল ওই নারী তার মামা নুর হোসেনের সঙ্গে বসে মদ পান করেন মাতলামি করেন। পরে এলাকায় জানাজানি হয় যে, নুর হোসেন ও তার সঙ্গীরা তার ভাগ্নিকে মদ পান করিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে গতকাল বুধবার পুলিশ ঘটনা তদন্তের জন্য নুর হোসেন ও তার ভাগ্নিকে থানায় আনলে ভিন্ন ঘটনা জানা যায়। 

এ বিষয়ে ওই ভুক্তভোগী নারী (নুর হোসেনের ভাগ্নি) বলেন, ‘নুর মোহাম্মদ আমাকে বিয়ের কথা বলে দীর্ঘদিন ধরে আমার সাথে শারীরিক সম্পর্ক করে আসছে। পরে যখন আমাকে বিয়ে করার কথা বলি, সে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানালে মনের দুঃখে আমি আমার মামা নুর হোসেনের সাথে বসে মদ পান করে ভারসাম্য হারিয়ে ফেলি। ওই অবস্থায় এলাকার মানুষ বিচারের নামে আমার কাছ থেকে সাদা কাগজে টিপ সই নেয় এবং নুর হোসেনসহ কয়েকজন মিলে আমাকে ধর্ষণ করেছে বলে মিথ্যা ঘটনা সাজায়। কিন্তু সেটা সত্য নয়। আসল কথা হচ্ছে, নুর মোহাম্মদ আমাকে বিয়ে করবে বলে শারীরিক সম্পর্ক করে। পরে আমি বিয়ের কথা বললে সে অস্বীকৃতি জানায়। তাই মিথ্যা বলে আমাকে ব্যবহার করায় আমি নুর মোহাম্মদের বিচার চাই তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা দায়ের করেছি।’

এ বিষয়ে লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পেলা রাজু নাহা বলেন, ‘এক নারীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করে এখন তাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করায় নুর মোহাম্মদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন তিনি। আসামি নুর মোহাম্মদ পলাতক রয়েছে। আমরা তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি।’