advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

শিক্ষকের মারধরের বিচার চাইতে গিয়ে পিটুনিতে অজ্ঞান মাদ্রাসাছাত্রী!

পরশুরাম (ফেনী) প্রতিনিধি
১৮ এপ্রিল ২০১৯ ১৯:৪২ | আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০১৯ ১৯:৫১
advertisement

ফেনীর পরশুরাম উপজেলায় মাদ্রাসাশিক্ষকের পিটুনির বিচার চাইতে গিয়ে আরেক শিক্ষকের পিটুনিতে জ্ঞান হারিয়েছে আসমা আক্তার (১৩) নামের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী।   

আজ বৃহস্পতিবার সকালে পরশুরামের মির্জানগর ইউনিয়নের সুবার বাজার ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে সুবার বাজার ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার গণিতের শিক্ষক জহিরুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ।  

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আসমা আক্তার জানায়, গত মঙ্গলবার মাদ্রাসার গণিত ক্লাসে একটি সূত্র ভুল করে সে। এ ঘটনায় তাকে বেত ও ডাস্টার দিয়ে মাথা ও শরীরে প্রচণ্ড মারধর করেন মাদ্রাসার গণিতের শিক্ষক জহিরুল ইসলাম। এই মারধরের বিষয়ে বিচার চেয়ে আজ মাদ্রাসায় এসে আরেক শিক্ষক ইউসুফকে বিষয়টি জানায় আসমা। তাকে বিষয়টি জানালে তিনিও ক্ষিপ্ত হয়ে আসমাকে ব্যাপক মারধর করেন। একপর্যায়ে আসমা জ্ঞান হারিয়ে ফেললে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ইন্দ্রোজিত ঘোষ জানান, ওই শিক্ষার্থীকে অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে একাধিক আঘাতের চিহ্ন্ রয়েছে।

এ বিষয়ে সুবার বাজার ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. আনোয়ার শাহ বলেন, ‘অসুস্থ ছাত্রীকে হাসপাতালে গিয়ে দেখে এসেছি, বর্তমানে সে সুস্থ আছে।’

শিক্ষকের বেত্রঘাতের কথা স্বীকার করে অধ্যক্ষ বলেন, ‘বিষয়টি মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সঙ্গে কথা বলে সমাধান করা হবে।’

পরশুরাম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রমিজ উদ্দিন জানান, হাসপাতালে পুলিশ গিয়ে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে এসেছে। শিক্ষার্থীর পরিবার থেকে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

advertisement