advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

রোজায় পণ্যের দাম বাড়ালে কঠোর ব্যবস্থা

চট্টগ্রাম ব্যুরো
১৯ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৯ এপ্রিল ২০১৯ ১১:৪৯

রমজানের অত্যাবশ্যকীয় ভোগ্যপণ্যের মজুদ যথেষ্ট, তাই দাম বাড়ার কারণ নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মফিজুল ইসলাম। এর পরও রমজান মাসে ভোগ্যপণ্যের দাম বাড়ালে কিংবা পণ্যে ভেজাল মেশালে সরকারের পক্ষ থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এতে যদি সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীও জড়িত থাকেন, তাদের ছাড় দেওয়া হবে না।

জবাবে ব্যবসায়ীরাও বলেছেন, রমজানে ভোগ্যপণ্যের দাম কোনোমতেই বাড়বে না। ব্যবসায়ীরা বলেন, রমজানে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় কিছু কিছু পণ্যের দাম বাড়ে। পরিবহন সমস্যা, খুচরা বিক্রেতাদের বেশি মুনাফা, ক্রেতারা একসঙ্গে অনেক পণ্য কেনার কারণে অনেক সময় বাজারে অস্থিরতা দেখা দেয়। এসবের জন্য ব্যবসায়ীদের এককভাবে দায়ী করা যায় না। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে রমজান মাস উপলক্ষে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণবিষয়ক সভায় স্থানীয় ব্যবসায়ী ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়সভায় দুই পক্ষ থেকে এমন বক্তব্য উঠে আসে।

বাণিজ্য সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়ীদের ব্যাপারে সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা দিয়ে থাকেন। এককথায় বলতে গেলে তিনি ব্যবসাবান্ধব। সুতরাং ব্যবসায়ী মহল যদি কোনো অপকর্ম করে থাকেন, তা হলে তিনি কোনোভাবে ছাড় দেবেন না। চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা বলেন, দ্রব্যমূল্য কোনো প্রকার মজুদ এবং কালোবাজারি করলে কোনোভাবে বরদাশত করা হবে না। পণ্যের মান এবং দাম নিশ্চিত না করলেই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সব জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ে একটি নিয়ন্ত্রণকক্ষ থাকবে, যার মাধ্যমে রমজানের প্রত্যেকটি বিষয় নিয়ন্ত্রণ করা যাবে এবং যেখানে ভোক্তা অধিকার ও বিএসটিআই সহযোগিতা করবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. কামাল হোসেন। রমজান মাসে বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসন থেকে বাজার তদারকি দল থাকবে। কোনো অসংগতি পেলেই তাৎক্ষণিক ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মতবিনিময়সভায় আরও বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম, সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, খাতুনগঞ্জ ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ছগীর আহমদ, চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মহিউদ্দিন মাহমুদ সোহেল, ক্যাবের সহসভাপতি এসএম নাজের হোসাইনসহ নগরীর বিভিন্ন বাজার কমিটির নেতারা।