advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মুরাদনগরে বিদ্যুৎ সংযোগ না পেয়েও কারাগারে দিনমজুর

মুরাদনগর প্রতিনিধি
১৯ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৯ এপ্রিল ২০১৯ ১০:১৮

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের মোচাগড়া গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগ না পেয়েও বকেয়া বিলের মামলায় দিনমজুর আব্দুল মতিন মিয়া (৪৫) কারাগারে আছেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার পল্লী বিদ্যুতের দেবিদ্বার জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মৃনাল কান্তি চৌধুরীকে আহ্বায়ক ও বাঙ্গরা-দৌলতপুর জোনাল অফিসের সহকারী জেনারেল ম্যানেজার মাহফুজুর রহমানকে সদস্য করে কমিটি গঠন করেন কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ১-এর জেনারেল ম্যানেজার মোস্তাফিজুর রহমান। কমিটির সদস্যদ্বয় গতকালই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। কারারুদ্ধ আব্দুল মতিন মিয়ার স্ত্রী আমেনা খাতুন কান্নাজড়িত কণ্ঠে জানান, তারা খুবই গরিব। টাকা দিয়েও বিদ্যুৎ সংযোগ পাননি। তার পরও বকেয়া বিলের মামলায় তার স্বামীকে জেলে যেতে হয়েছে। তিনি তার স্বামীকে কারামুক্ত করতে সাংবাদিকদের সহায়তা কামনা করেন।

মোচাগড়া এলাকার মানিক মাস্টার, সৈয়দ তরুণ মিয়া, যুবলীগ নেতা সেলিম সরকার ও মনির হোসেন জানান, পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের কিছু কর্মচারীর খামখেয়ালি ও গাফিলতির কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। নিরপরাধ আব্দুল মতিন মিয়া গ্রেপ্তার হওয়ায় তার পরিবারের লোকজন নিদারুণ কষ্ট পাচ্ছেন। খাওয়া-পরা বন্ধ হয়ে গেছে। তারা দ্রুত মতিন মিয়ার মুক্তির ব্যবস্থাসহ ক্ষতিপূরণের দাবি করেন। পাশাপাশি ওই ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন।

তদন্ত কমিটির প্রধান মৃনাল কান্তি চৌধুরী জানান, আব্দুল মতিন নামের মিটারটি প্রায় কোয়ার্টার কিলোমিটার দূরে সফিকুল ইসলামের বাড়িতে সংযোগ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সফিকুল ইসলামও বিষয়টি অফিসকে জানাননি এবং বিদ্যুৎ বিলও পরিশোধ করেননি। আর আব্দুল মতিন নোটিশ পেয়েও ঘরে বিদ্যুৎ না থাকায় বিষয়টি আমলে নেননি, যার ফলে এ ঘটনা ঘটেছে।