advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ধর্ষণের মামলায় শেকৃবির শিক্ষার্থী রিমান্ডে

১৯ এপ্রিল ২০১৯ ০১:৩৩
আপডেট: ১৯ এপ্রিল ২০১৯ ১০:২১

মার্কস মেডিক্যাল কলেজের এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগের মামলায় শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বাধন মাতব্বরের (২৩) একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

গতকাল ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদ উর রহমান শুনানি শেষে এ রিমান্ডের আদেশ দেন। এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শেরেবাংলানগর থানার কর্মকর্তা (এসআই) সাহেরা খানম আসামিকে আদালতে হাজির করে পাঁচদিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

advertisement

গত বুধবার রাতে সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সামনে শেকৃবির অ্যাগ্রি বিজনেস অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অনুষদের চতুর্থ বর্ষের ওই শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করে শেরেবাংলানগর থানাপুলিশ। রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, গত ১৭ এপ্রিল সকাল ১০টার দিকে শেকৃবির ২ নম্বর গেট থেকে ভুক্তভোগীকে ফুসলিয়ে অনুরাগ হোটেলের আশপাশে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় ওই আসামি।

পরে তার কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। ভুক্তভোগী টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে আসামি তাকে ধর্ষণ করে এবং তা ধারণ করে রাখে। ওইদিন বিকাল ৫টার মধ্যে টাকা না দিলে তার আপত্তিকর ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকিও দেয় আসামি। মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থনা করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

অন্যদিকে বাধনের পক্ষে তার আইনজীবী নূরে আলম সরকার রিমান্ড বাতিলপূর্বক জামিন আবেদন করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে একদিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

এ বিষয়ে শেরেবাংলানগর থানার কর্মকর্তা (ওসি) জানে আলম মুন্সী বলেন, বাধন মাতব্বরের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছে ভুক্তভোগী। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকারও করেছেন। পরবর্তী সময় তাকে আমরা আদালতে চালান করে দিয়েছি।

এ বিষয়ে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. ফরহাদ হোসেন বলেন, এ বিষয়ে থানা কর্তৃপক্ষ আমাকে অবহিত করেছিল। আমি বিষয়টি নিয়ে উপাচার্যের সঙ্গে কথা বলে শৃঙ্খলা কমিটির বৈঠকে উত্থাপন করব।