advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আঙুল কেটে ভুলের মাসুল

আমাদের সময় ডেস্ক
২০ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২০ এপ্রিল ২০১৯ ০৯:২৩

ভারতের উত্তরপ্রদেশের পবন কুমার ভোট দিতে চেয়েছিলেন প্রিয়দল বহুজন সমাজ পার্টিকে (বিএসপি)। তবে ইভিএমে নাম বুঝতে ভুল করে ভোট দিয়ে বসেন ভারতীয় জনতা পার্টিকে (বিজেপি)। ‘বিএসপি’ ও ‘বিজেপি’, মাঝখানের অক্ষরটি বাদ দিলে বাকিটা যে একই।

কিন্তু রাজনীতির ময়দানে সেই পার্থক্য পাহাড়সমান। পবন কুমারও সেটা বোঝেন। তার পরও ভুলটা করে ফেলেন বুথের ভিতরে ইভিএমের সামনে দাঁড়িয়ে। বিএসপির হাতির পরিবর্তে চাপ দেন বিজেপির পদ্মফুলের বোতামে। পছন্দের দলকে ভোট দিতে না পেরে দলিত সম্প্রদায়ের পবন রাগে-দুঃখে অমোচনীয় কালি লাগানো নিজের তর্জনীটিই কেটে ফেলেন। পরে তাকে উদ্ধার করে পরিবারের লোকজন হাসপাতালে নিয়ে যায়। তবে ভর্তি হতে হয়নি, হাতে ব্যান্ডেজ পরিয়ে আর কিছু ওষুধপত্র লিখে ছেড়ে দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

পরে এক ভিডিওতে নিজের কাটা তর্জনী দেখিয়ে পবন কুমার বলেন, ‘আমি হাতিতে ভোট দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ভুলে পদ্মফুলে দিয়ে ফেলি। আসলে মেশিনে (ইভিএম) অনেক প্রতীক দেখে বিভ্রান্ত হয়ে যাই। দুই দলের নামটাও প্রায় একই।’ খবর আনন্দবাজারের। তবে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘ভুল করে’ বিজেপিকে ভোট দেওয়ায় এক ভোটারের হাতের আঙুল কেটে নিল বহুজন সমাজ পার্টির এক সমর্থক! সেই ভোটার পবন কুমার বলেন, ‘বিশ্বাস করুন, আমি হাতি প্রতীকে ভোট দিতে গিয়েও পদ্মফুলে ভোটটা দিয়ে দিলাম। কিন্তু এ ভুলের জন্য যে আমার আঙুলটাই চলে যাবে, তা ভাবতে পারিনি।’

এবার লোকসভা নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশে বিএসপি, সমাজবাদী পার্টি (এসপি) ও রাষ্ট্রীয় লোকদল (আরএলডি) একজোট হয়ে লড়াই করছে। বুলন্দশহর কেন্দ্রে এসপি এবং আরএলডি সমর্থিত বিএসপি প্রার্থী হয়েছেন যোগেশ বর্মা। আর বিজেপির প্রার্থী ভোলা সিংহ। এ কেন্দ্রেরই শান্তিপুর থানার আবদুল্লাপুর-হুলাসপুর গ্রামের বাসিন্দা পবন কুমার বিএসপি সমর্থক। গত বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দফায় বুলন্দশহরেও ভোট হয়েছে।