advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি
২০ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২০ এপ্রিল ২০১৯ ০৯:২৭

দুই শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির ঘটনায় অভিযুক্ত কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসএসই) বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক প্রকৌশলী মো. আক্কাচ আলীকে আজীবনের জন্য চেয়ারম্যান পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এ ছাড়াও ওই শিক্ষককে আগামী ২০২২ সাল পর্যন্ত প্রশাসনিক সকল কার্যক্রম থেকেও বিরত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা কমিটির সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। গত এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে আক্কাচ আলীকে চাকরি থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারসহ পাঁচ দফা দাবিতে আন্দোলন করে আসছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। প্রতিদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত একাডেমিক ভবনের চতুর্থ তলায় সিএসই বিভাগের সামনে ক্লাস বর্জন করা হচ্ছিল। অতিসম্প্রতি ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভাগের দুই ছাত্রী যৌন হয়রানির অভিযোগ করেন।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে কয়েক মাস আগেও যৌন হয়রানির অভিযোগ করা হয়েছিল। সে সময় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের যে কোনো বন্ধের সময় কোনো শিক্ষার্থীকে ক্যাম্পাসে বা তার বাসায় ডাকতে পারবেন না বলে সতর্ক করে। কিন্তু অভিযুক্ত আক্কাচ আলী এর কোনো তোয়াক্কা না করে মেয়েদের ডেকে নিয়ে অশালীন আচরণ করেন।

যৌন হয়রানির বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. আ. রহিম খান বলেন, যেহেতু বিষয়টি স্পর্শকাতর ও এর সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের মানসম্মান জড়িত, তাই আমরা খুব সতর্কতার সঙ্গে তদন্ত কাজ সম্পন্ন করেছি। তিনি আরও বলেন, আমরা ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ২০০টি অভিযোগ পেয়েছিলাম। এতগুলো অভিযোগ তদন্ত ছাড়াও অন্য শিক্ষক শিক্ষার্থীদের থেকে তথ্য সংগ্রহ করে নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করে তার পর প্রতিবেদন দাখিল করেছি।

সিএসই বিভাগের চেয়ারম্যানের অব্যাহতি প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. খন্দকার নাসির উদ্দিন জানান, সহকারী অধাপক প্রকৌশলী মো. আক্কাচ আলীকে আজীবনের জন্য অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে এবং আগামী ২০২২ সাল পর্যন্ত (৮ সেমিস্টার) সব অফিসিয়াল কার্যক্রম থেকেও তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী তিনি অফিসে আসবেন, স্বাক্ষর করবেন। এ ছাড়া অন্য কোনো কাজ নেই উনার। তবে তিনি বেতন ও অন্যান্য সুবিধা পাবেন।