advertisement
Dr Shantu Kumar Ghosh
advertisement
Dr Shantu Kumar Ghosh
advertisement
advertisement

আলোয় ঝলমলে সাইফউদ্দিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২০ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২০ এপ্রিল ২০১৯ ০৩:১০

বিশ্বকাপ দুয়ারে। এ আসরকে সামনে রেখে প্রিমিয়ার লিগে আলোয় ঝলমলে পারফরম্যান্স উপহার দিয়ে যাচ্ছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। বিশ্বকাপ দল ঘোষণার আগের দিন ৫০ ওভারের ক্রিকেটে ক্যারিয়ারসেরা বোলিং উপহার দেন এই তরুণ। তার বোলিং বিশ্লেষণ ছিল ৬-২-৯-৫। এবার বিশ্বকাপ দলে জায়গা করে নেওয়ার পর আবাহনীর জার্সি গায়ে আবারও জ্বলে উঠলেন ফেনীর এই পেস অলরাউন্ডার। গতকাল প্রাইম ব্যাংকের বিপক্ষে আরেকবার পাঁচ উইকেট শিকারের কৃতিত্ব দেখালেন।

৯.৩ ওভারে ৩২ রান দিয়ে পাঁচ উইকেট পান। কয়েক দিনের ব্যবধানে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে দুবার পাঁচ উইকেট শিকার করেন সাইফউদ্দিন। আগুনে বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাট হাতেও উজ্জ্বল তিনি। বিশ্বকাপের আগে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স আরও আত্মবিশ্বাসী করে তুলবে সাইফউদ্দিনকে। ‘একটি শিশু প্রথম প্রথম হাঁটতে গিয়ে পড়ে যাবে। তার অর্থ এই নয় যে শিশুটি আর হাঁটতে পারবে না।’ মায়ের এমন কথাতেই সব সময় অনুপ্রেরণা পান মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। বয়সভিত্তিক ক্রিকেট মাতিয়ে যখন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পা রাখেন, শুরুটা ভালো ছিল না তার। হোঁচট খাওয়ার পর আবার শক্তভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হয়। তাতেই আসে সাফল্য।

সে কাজটিই করে দেখান সাইফউদ্দিন। ঘরোয়া ক্রিকেটে দ্যুতি ছড়ানো পারফরম্যান্স উপহার দেওয়ার পর গত নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে ব্যাটে-বলে অমিয় সম্ভাবনার বার্তা দেন ফেনীর এই ক্রিকেটার। নিউজিল্যান্ড থেকে ফেরার পর আবারও ঘরোয়া ক্রিকেটে সাইফউদ্দিন দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়ে যাচ্ছেন। সাইফউদ্দিনের বিধ্বংসী বোলিংয়ে আরেকটি জয় পেয়েছে আবাহনী। প্রাইম ব্যাংককে ৬ উইকেটে হারিয়ে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জয়ের দৌড়ে এগিয়ে গেল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

১৪ ম্যাচ খেলে ১১টি জয়ে ২২ পয়েন্ট তাদের। সর্বোচ্চ ২৪ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে থাকা রূপগঞ্জের পরই আবাহনীর অবস্থান। মিরপুরে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে সাইফউদ্দিনের আগুনে বোলিংয়ে পুড়ে ছারখার হয়েছে প্রাইম ব্যাংক। ২২৬ রানেই গুটিয়ে যায় তাদের ইনিংস। কাপালি ৮০, নাঈম অপরাজিত ৫১ রান করেন। সাইফউদ্দিনের দিনে ১০ ওভারে ৫০ রান দিয়ে ২ উইকেট শিকার করেন মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। ২ উইকেট পান সৌম্য সরকারও। মিরাজ নেন এক উইকেট। আবারও হতাশ করলেন সৌম্য। বোলিংয়ে ঝলক দেখা গেলেও তার ব্যাটে রান আসেনি। কোনো রান না করেই সাজঘরে ফিরেছেন তিনি।

ওয়াসিম জাফর ৬৪ রান করে আউট হওয়ার পর আবাহনীকে প্রত্যাশিত জয় এনে দেন নাজমুল ইসলাম শান্ত (অপরাজিত ৭৭) ও মোহাম্মদ মিঠুন (অপরাজিত ৩৩)। ৩২ বল হাতে রেখে ৪ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় আবাহনী (২২৮/৪)। এদিকে আবারও হেরেছে মোহামেডান। ফতুল্লায় শেখ জামালের কাছে ৭ উইকেটে হেরেছে দেশের ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। আগে ব্যাটিংয়ে নেমে তুষার ইমরানের ফিফটিতে সব কটি উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রান তোলে মোহামেডান। ১৬ রানে ৪ উইকেট পান তানভীর হায়দার। জবাবে ৩৩.৩ ওভারে নুরুল হাসান সোহান (অপরাজিত ৮৩) ও ইমতিয়াজের (৫৪) ব্যাটে জয় তুলে নেয় শেখ জামাল (১৬৩/৩)।