advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ফেরদৌস ইস্যুতে মমতাকে একহাত নিলেন মোদি

আমাদের সময় ডেস্ক
২১ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২১ এপ্রিল ২০১৯ ০৮:৪৫

লোকসভা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপের ভোটের আগে ফের বাগ্যুদ্ধে জড়ালেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল শনিবার পশ্চিমবঙ্গে দুটি দলীয় জনসভায় এ দুই নেতা পরস্পরের বিরুদ্ধে অভিযোগের ডালি উগরে দিয়েছেন।

বাংলাদেশের চিত্রতারকা ফেরদৌসের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে অংশ নেওয়াকে হাতিয়ার করে মমতার বিরুদ্ধে তোপ দাগিয়েছেন মোদি। আর মমতা বলছেন মোদির লক্ষ্যই হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে হিন্দু-মুসলিম বিভাজন তৈরি করে ফায়দা তোলা। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া ও হিন্দুস্তান টাইমস।

advertisement

তৃতীয় দফায় পশ্চিমবঙ্গে আগামী মঙ্গলবার ভোট হতে যাচ্ছে। এ দফায় পাঁচটি আসন- বালুরঘাট, মালদা উত্তর, মালদা দক্ষিণ, মুর্শিদাবাদ ও জঙ্গিপুর। এর তিন দিন আগে গতকাল দক্ষিণ দিনাজপুরের বুনিয়াদপুরে বিজেপির এক জনসভায় যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এলাকাটি বাংলাদেশ সীমান্তসংলগ্ন। সেখানে মোদির আক্রমণের মূল লক্ষ্যই ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসপ্রধান পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এর আগেও পশ্চিমবঙ্গে গিয়ে মমতাকে ‘উন্নয়নের পথে স্পিডব্রেকার’ বলেছিলেন মোদি। যার জবাবে মোদিকে ‘এক্সপেয়ারি বাবু’ বলেছিলেন মমতা। গতকালও পাল্টাপাল্টি তোপ দাগান দুই নেতা। কদিন আগেই তৃণমূলের এক প্রার্থীর প্রচারে গিয়ে বিজেপির অভিযোগের মুখে ভারত ছাড়তে হয় বাংলাদেশি চলচ্চিত্র তারকা ফেরদৌসকে। গতকাল জনসভায় এ প্রসঙ্গ তুলে মমতাকে একহাত নেন মোদি।

মুখ্যমন্ত্রী প্রতিবেশী দেশের লোকজনকে দিয়ে প্রচার চালাচ্ছেন অভিযোগ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটি লজ্জাজনক যে, প্রতিবেশী দেশের লোকজন তৃণমূলের নির্বাচনী প্রচার চালাচ্ছে। সংখ্যালঘুদের টানতেই দলটি এমন কাজ করছে। মোদি আরও বলেন, ভারতের ইতিহাসে এমন ঘটনা আর কখনই ঘটেনি। প্রথম দুই দফার ভোটের পর মমতার ঘুম উধাও হয়ে গেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এদিনই কৃষ্ণনগরে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে জনসভায় যোগ দেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সেখানে মোদির বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, হিন্দু-মুসলমান বিভেদ তৈরি করে ভোট টানতে মোদি বাংলাজুড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। ভোটে বিজেপিকে কঠিন জবাব দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, দেশ বাঁচাতে হলে বিজেপিকে ভোট দেবেন না। মোদি পরাজয় আতঙ্কে ভুগছেন দাবি করে মমতা বলেন, হার আতঙ্কে মোদির মুখ বিবর্ণ হয়ে গেছে।