advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রেমের টানে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দামুড়হুদায় ৫৫ বছরের ডংসন বিয়ে করলেন ২৮ বছরের ফয়সালকে

দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি
২১ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২১ এপ্রিল ২০১৯ ০৯:১৮

ভালোবাসার টানে সাত সাগর তেরো নদী পেরিয়ে বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছুটে এসেছেন এক নারী। ডংসন নামে ৫৫ বছর বয়সী ওই আমেরিকান নারীর ফেসবুকের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদার ২৮ বছর বয়সী যুবক ফয়সালের সঙ্গে।

জানা গেছে, ডংসন নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে ইসলাম ধর্মগ্রহণ করে তার নাম পরিবর্তন করেছেন এবং ১০ হাজার টাকা দেনমোহর ধার্য করে গত ১৩ এপ্রিল তারা দুজন চুয়াডাঙ্গার জজ আদালতে উপস্থিত হয়ে বিয়ে করেছেন। দামুড়হুদা সদরের গুলশানপাড়ার সোনালী ব্যাংক কর্মচারী শাহাবুল হোসেনের ছেলে ফয়সালের এটি দ্বিতীয় বিয়ে। এ দম্পতির সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য ফয়সালদের বাড়িতে গিয়ে তাদের দেখা মেলেনি।

এলাকাবাসী জানান, ফয়সাল হয়তো আমেরিকা যাওয়ার লোভে ডংসনকে বিয়ে করেছেন। তারা জানান, গত কয়েক দিন ধরে তাদের ওই এলাকায় দেখা যাচ্ছে না। ফয়সালের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। নোটারি পাবলিকের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অ্যাডভোকেট এসএনএ হাশেমী জানান, তিনি যতদূর জানেন, মধ্যবয়সী এক মার্কিন নারীর সঙ্গে ফয়সালের বিয়ে হয়েছে।

তিনি বলেন, ফয়সাল ও ডংসন আমার কাছ থেকে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে ডিক্লারেশন নিয়েছেন। ১ নম্বর আলোকদিয়া ইউনিয়নের কাজী হাশেম আলী জানান, গত ১৩ এপ্রিল শনিবার দুজনের বিয়ে হয়েছে। বিবাহ রেজিস্টারে উল্লেখ করা ঠিকানায় বলা হয়েছে ফয়সাল চুয়াডাঙ্গা পৌর কলেজপাড়ার শাহাবুলের ছেলে। আর কনে ৫৫ বছর বয়সী মার্কিন নাগরিক ডংসন, যিনি তার নাম এফিডেফিটের মাধ্যমে পরিবর্তন করে মরিয়ম খাতুন রেখেছেন। তারা ১০ হাজার টাকা দেনমোহর ধার্য করে বিবাহ করেছেন।