advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ফরিদপুর শহরে কীর্তনরত আট সাধুকে হত্যা করে হানাদাররা

ফরিদপুর প্রতিনিধি
২১ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২১ এপ্রিল ২০১৯ ০৯:২০

ফরিদপুর শহরের গোয়ালচামট এলাকায় অবস্থিত মহানাম সম্প্রদায়ের প্রধান উপাসনালয় শ্রীঅঙ্গনের আট সাধু হত্যাকাণ্ডের স্মৃতি আজও ভুলতে পারেননি ফরিদপুর শহরবাসী। ১৯৭১ সালের ২১ এপ্রিল সন্ধ্যায় শ্রীঅঙ্গনে কীর্তনরত অবস্থায় তাদের লাইনে দাঁড় করিয়ে হত্যা করে পাকবাহিনী।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনামতে, ২১ এপ্রিল সন্ধ্যায় পাকবাহিনী প্রবেশ করে ফরিদপুর শহরে। প্রবেশমুখে শ্রীঅঙ্গনের সাধুদের তারা কীর্তনরত অবস্থায় পায়। পাক হানাদাররা শ্রীঅঙ্গনে প্রবেশ করে সেখানে থাকা সাধুদের এক লাইনে দাঁড় করিয়ে ব্রাশফায়ার করে। এর মধ্যে একজন বেঁচে গেলেও বাকি আট সাধু ঘটনাস্থলেই নিহত হন। এ হত্যাকা-ের মধ্য দিয়েই ফরিদপুরে পাকবাহিনীর হত্যাযজ্ঞ শুরু হয়।

নিহত আট সাধু হলেন, কীর্তনব্রত ব্রহ্মচারী, নিদানবন্ধু ব্রহ্মচারী, অন্ধকানাই ব্রহ্মচারী, বন্ধুদাস ব্রহ্মচারী, ক্ষিতিশবন্ধু ব্রহ্মচারী, গৌরবন্ধু ব্রহ্মচারী, চিরবন্ধু ব্রহ্মচারী ও রবিদাস ব্রহ্মচারী। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর নিহত সাধুদের শ্রীঅঙ্গনের প্রধান মন্দিরসংলগ্ন চালতা তলায় সমাধিস্থ করা হয়। পরে সেই স্থানে স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করা হয়। আট সাধুর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে শ্রীঅঙ্গনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, সকালে পূর্জা-অর্চণা, দুপুরে নিহত সাধুদের স্মরণে ভোগ প্রদান ও বিকালে আলোচনাসভা।