advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ফাইনালে চোখ ছোটনের

২১ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০
আপডেট: ২১ এপ্রিল ২০১৯ ০৮:৫২

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ দিয়ে আবারও মাঠে নামছে বাংলাদেশের মেয়েরা। ঘরের মাঠে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হচ্ছে আসরটি। সেখানে ৬ দল অংশ নিচ্ছে। আগামীকাল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে ম্যাচ-উদ্বোধনী দিনে মাঠে নামছে মৌসুমি-মারিয়ারা। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৬টায় শুরু হবে ম্যাচটি। টুর্নামেন্টে ফাইনাল খেলাই লক্ষ্য বাংলাদেশের। গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে এমন লক্ষ্যের কথা জানান বাংলাদেশের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। গত মাসে নেপালে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেয় জাতীয় দলের মেয়েরা। কিন্তু সেখানে প্রত্যাশিত সাফল্য পায়নি। সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হয় ছোটনের দলকে। এর আগে মিয়ানমারে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপ বাছাইপর্বের দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলেন মারিয়ারা। দুই আসর থেকে প্রাপ্ত অভিজ্ঞতা এবং ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে বঙ্গমাতা টুর্নামেন্টে সেরাটা খেলতে চায় বাংলাদেশ।

কোচ ছোটন তো বলেই দিয়েছেন, টুর্নামেন্টে স্মরণীয় কিছু করে দেখাতে চান তারা। বঙ্গমাতা টুর্নামেন্ট সামনে রেখে প্রস্তুতি ভালো হয়েছে লাল-সবুজদের। নেপাল থেকে ফিরে সাত দিনের ছোট্ট রিকভারি সেশন শেষ করে মাঠের অনুশীলনে নেমে পড়ে বাংলার বাঘিনীরা। প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুযোগ না পেলেও তিন সপ্তাহের প্রস্তুতিতে সন্তুষ্ট কোচ ছোটন। ঘরের মাঠে প্রথমবারের মতো বড় আসরে খেলতে যাচ্ছেন মেয়েরা। টুর্নামেন্টটি আবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে। টুর্নামেন্টে ভালো করার প্রচ্ছন্ন একটা চাপ তো থাকে! কিন্তু কোচ ছোটন কোনো চাপই অনুভব করছেন না।

ছোটনের মতে, আন্তর্জাতিক আসরে চ্যালেঞ্জ থাকাটা স্বাভাবিক। কিন্তু কোচ চাপ অনুভব করছি না। আমাদের মেয়েদের অনেক বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। আশা করি টুর্নামেন্টে তারা ভালো খেলবে। টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ বি-গ্রুপ থেকে লড়বে। আগামীকাল আরব আমিরাতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু করা লাল-সবুজরা গ্রুপপর্বে শেষ ম্যাচ খেলবে কিরগিজস্তানের বিপক্ষে। ২৬ এপ্রিল ওই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। এই দুই দলের বিপক্ষে অনূর্ধ্ব-১৬ পর্যায়ে খেলার এবং জেতার অভিজ্ঞতা রয়েছে মারিয়াদের।

অনূর্ধ্ব-১৯ আসরে প্রথমবারের মতো লড়বে। আসরে আরও তিন দল রয়েছে। তার মধ্যে লাওস এবং মঙ্গোলিয়া-এ দুটি দলের বিপক্ষে আগে কখনই খেলেননি ছোটন শিষ্যরা। তবে তাজিকিস্তানের বিপক্ষে খেলেছে। সাফে যে দলটি খেলেছে সেই দলের অধিকাংশ সদস্যের জায়গা হয়েছে বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ টুর্নামেন্টে। শুধু বয়সের কারণে বাদ পড়েছেন অভিজ্ঞ স্ট্রাইকার সাবিনা খাতুন। দলে নতুন মুখ তিনজন-নাজমা, সাজেদা এবং সুলতানা। অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করবেন মিশরাত জাহান মৌসুমি, সহ-অধিনায়ক মারিয়া মান্ডা।

টুর্নামেন্ট সামনে রেখে অধিনায়ক মৌসুমি জানান, প্রধানমন্ত্রী আগে আমাদের অনেক কিছু দিয়েছেন। কিন্তু এই আসরে জিতলে কী দেবেন না দেবেন সেসব নিয়ে ভাবছি না। প্রধানমন্ত্রীর মায়ের নামে টুর্নামেন্ট। আমাদের প্রস্তুতি ভালো হয়েছে, প্লেয়াররা সবাই সুস্থ আছেন। আমরা টুর্নামেন্টে ভালো কিছু করতে চাই। ট্রফিটা ঘরে রেখে দিতে চাই।

বাংলাদেশ দল : রুপনা চাকমা, মাহমুদা আক্তার, ইয়াসিন আক্তার, মাশুরা পারভীন, নার্গিস খাতুন, আঁখি খাতুন, শিউলি আজিম, মিশরাত জাহান মৌসুমি, শামসুন্নাহার, নিলুফার ইয়াসমিন, নাজমা আক্তার, মারিয়া মান্ডা, মনিকা চাকমা, ইসরাত জাহান রত্না, মার্জিয়া, রাজিয়া খাতুন, সানজিদা আক্তার, সিরাত জাহান স্বপ্না, কৃষ্ণা রানী সরকার, শামসুন্নাহার (জুনিয়র), সাজেদা খাতুন, তহুরা খাতুন এবং মোসাম্মত সুলতানা।