advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আবারও আবাহনী চ্যাম্পিয়ন

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৪ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৪ এপ্রিল ২০১৯ ০৯:৩৩
advertisement
advertisement

আবাহনীর সামনে সহজ সমীকরণ ছিল-জিতলেই চ্যাম্পিয়ন। সৌম্য সরকারের অপরাজিত ডাবল সেঞ্চুরির সুবাদে শেখ জামালকে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে শিরোপা ধরে রাখল আবাহনী। এ নিয়ে টানা দ্বিতীয়বার ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে চ্যাম্পিয়ন হলো দেশের ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি।

অপর ম্যাচে প্রাইম ব্যাংকের বিপক্ষে ৮৮ রানের জয় পেলেও লিগে রানার্সআপ হয়েছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। আবাহনী ও রূপগঞ্জের অর্জন সমান ২৬ পয়েন্ট হলেও হেড টু হেডে এগিয়ে থাকায় শিরোপা জিতেছে আবাহনী। অপর দিকে লিগের শেষ ম্যাচে হেরেছে মোহামেডান। প্রাইম দোলেশ্বরের কাছে ৩ রানে হেরেছে তারা।

পয়েন্ট টেবিলে তিন নম্বরে থেকে লিগ শেষ করল দোলেশ্বর। বিকেএসপিতে তানভীর হায়দারের অপরাজিত সেঞ্চুরির (১৩২*) সুবাদে ৯ উইকেট হারিয়ে ৩১৭ রান তোলে শেখ জামাল। মাশরাফি ১০ ওভারে ৫৬ রান দিয়ে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট পান। জবাবে উদ্বোধনী জুটিতে সৌম্য-জহুরুলের রেকর্ড ৩১২ রানের জুটিতে এক উইকেট হারিয়ে সহজ জয় তুলে নেয় আবাহনী। লিস্ট-এ ক্রিকেটে এই প্রথমবার উদ্বোধনী জুটিতে ট্রিপল সেঞ্চুরি দেখল বাংলাদেশ। ১৫৩ বলে অপরাজিত ২০৮ রানের মহাকাব্যিক ইনিংস খেলেন সৌম্য।

লিস্ট-এ ক্রিকেটে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ডাবল সেঞ্চুরি পান এই ওপেনার। তার ইনিংসে ১৬টি দর্শনীয় ছক্কা ও ১৪টি চারের মারে সাজানো। ১২৮ বলে ঠিক ১০০ রান করে আউট হন জহুরুল। ম্যাচসেরা হন ডাবল সেঞ্চুরিয়ান সৌম্য সরকার। মিরপুরে মোহাম্মদ নাঈমের ১৩৬, মেহেদী মারুফের ৫৪, মুমিনুলের ৫২ রানের সুবাদে ৪ উইকেট হারিয়ে ৩২৭ রান তোলে রূপগঞ্জ। জবাবে ২৩৯ রানে গুটিয়ে যায় প্রাইম ব্যাংক। নাহিদুল সর্বোচ্চ ৭৪ রান করেন। রূপগঞ্জের হয়ে মোহাম্মদ শহীদ সর্বোচ্চ ৪ উইকেট পান।

এ ম্যাচে খেলেননি তাসকিন আহমেদ। ফতুল্লায় ৬ উইকেট হারিয়ে ২৭৪ রান তুলেছিল প্রাইম দোলেশ্বর। ফরহাদ ৮৯, সৈকত ৬৫, সাইফ ৫৫ রান করেন। জবাবে মোহামেডান ৯ উইকেট হারিয়ে ২৭১ রান তোলে। মোহাম্মদ আশরাফুল সর্বোচ্চ ৭৬ রান করেন। ম্যাচসেরা হন ফরহাদ হোসেন।

advertisement