advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

‘বিশ্বকে উ. কোরিয়ার নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দিতে হবে’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২৬ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৫ এপ্রিল ২০১৯ ২৩:৩০
রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা যদি তাদের পারমাণবিক কর্মসূচি বন্ধ করে, তা হলে দেশটির নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দিতে হবে আন্তর্জাতিক তথা বিশ্ব সম্প্রদায়কে। এ ধরনের নিশ্চয়তা প্রদানের জন্য বহুমুখী কর্মপন্থার দিকে অগ্রসর হতে হবে বলেও জানান পুতিন। অন্যদিকে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন পুতিনের সঙ্গে বৈঠককে খুবই অর্থপূর্ণ বলে বর্ণনা করেছেন। খবর বিবিসি। রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের মধ্যে এটিই প্রথম বৈঠক। গতকাল রাশিয়ার উপকূলবর্তী শহর ভøাদিভোস্তকে মিলিত হন। এর আগের দিন কিম সবুজ ট্রেনযোগে রাশিয়ায় পৌঁছেন। বিশ্লেষকরা বলছেন, চলতি বছর ফেব্রুয়ারি মাসে হ্যানয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে দ্বিতীয় দফা বৈঠক ভেস্তে যাওয়ার পর বিশ্ব সম্প্রদায়ের সহযোগিতা পেতে কিম রাশিয়ামুখী হয়েছেন। কিমের প্রশংসা করে পুতিন বলেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা খুবই খোলামেলা। সব বিষয় নিয়েই তিনি মন খুলে আলোচনা করেছেন। পুতিন বলেন, কোরীয় উপদ্বীপকে তিনি সম্পূর্ণ পারমাণবিক মুক্তাঞ্চল হিসেবে দেখতে চান। কিন্তু এটি কেবল আন্তর্জাতিক বিধিগুলো সবাইকে মানতে হবে। তিনি আরও বলেন, আন্তর্জাতিক আইন বলে আমাদের ক্ষমতার ভারসাম্য আনতে হবে। কেউ বেশি কেউ কম ক্ষমতাবান হবে তা হতে দেওয়া যাবে না। এদিকে রাশিয়ার মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, ক্রেমলিন বিশ্বাস করে উত্তর কোরিয়ায় ছয়-জাতি আলোচনা, যা বর্তমানে স্থগিত আছে; সেটিই এ উপদ্বীপের পরমাণু অস্ত্রবিষয়ক সমস্যাকে সমাধানের একমাত্র কার্যকরী উপায়। ২০০৩ সালে সেই আলোচনা শুরু হয়েছিল, যাতে দুই কোরিয়া ছাড়াও চীন, জাপান, রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র ছিল। তিনি আরও বলেন, এ ছাড়া আর কোনো কার্যকরী আন্তর্জাতিক মেকানিজম এ মুহূর্তে নেই। এদিকে বিশ্লেষকরা মনে করছেন, ট্রাম্পের সঙ্গে কিমের আলোচনা ভেস্তে যাওয়ার পর এই সম্মেলন রাশিয়ার জন্যও একটি সুযোগ নিয়ে এসেছে যেখানে তারা দেখাতে পারবে যে কোরীয় উপদ্বীপে তারা একটি গুরুত্বপূর্ণ ক্রীড়ানক।