advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিশ্বমানের স্পিনার হতে চাই

২৬ এপ্রিল ২০১৯ ০০:০০
আপডেট: ২৫ এপ্রিল ২০১৯ ২৩:৩০
তিনি একজন অফস্পিনার। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলেছেন প্রাইম ব্যাংকের হয়ে। আয়ারল্যান্ড সফরের দলে আছেন চট্টগ্রাম থেকে উঠে আসা এই তরুণ ক্রিকেটার। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আয়ারল্যান্ড সফরের মধ্য দিয়েই বাংলাদেশের ওয়ানডে দলে অভিষেক হতে চলেছে তার। গতকাল ঢাকা লিগ, আয়ারল্যান্ড সফর ছাড়াও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সুসান্ত উৎসব-এর সঙ্গে খোলামেলা কথা বলেছেন মোহাম্মদ নাঈম হাসান। বিস্তারিতÑ ে আমাদের সময় : কেমন কাটল ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ? নাঈম হাসান : মোটামুটি ভালোই কেটেছে। আমি প্রথম থেকে খেলিনি। সব মিলিয়ে ১১টা ম্যাচ খেলেছি। উইকেট পেয়েছি ১৫টা। এবার লিগের উইকেট খুব ভালো ছিল। মোটামুটি ভালোই বোলিং করেছি। ব্যাটিংটা (১৬০ রান) আল্লাহর রহমতে খুব ভালো হয়েছে। আমাদের সময় : মিরাজের মতো তা হলে বাংলাদেশ জাতীয় দল আরেকটা স্পিন অলরাউন্ডার পেতে চলেছে... নাঈম হাসান : চেষ্টা করছি। যখন ব্যাট করি তখন ব্যাটিংয়ের দিকেই পূর্ণ মনোযোগ দেই। আগের চেয়ে ব্যাটিংয়ে এখন অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী। জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি, প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের সঙ্গে ব্যাটিং নিয়ে কাজ করেছি। বোলিং নিয়ে কাজ করি আমার কোচ মুমিন ভাই এবং সালাউদ্দিন স্যারের সঙ্গে। মুমিন ভাইয়ের সঙ্গে বোলিং অ্যাকশন নিয়ে কাজ করা হয়; সালাউদ্দিন স্যারের সঙ্গে টেকনিক্যাল দিকগুলো। এ ছাড়া সুনীল যোশীর সঙ্গেও কাজ করা হয়। আমাদের সময় : আয়ারল্যান্ড সফরের দলে আছেন। কেমন লাগছে? নাঈম হাসান : ভালো লাগছে। সুযোগ পেলে শতভাগ দেওয়ার চেষ্টা করব। আমাদের সময় : ওখানে এর আগে খেলার অভিজ্ঞতা আছে কিনা? নাঈম হাসান : গত বছর অনূর্ধ্ব ১৮-এর (বাংলাদেশ ‘এ’ দল) হয়ে খেলতে গিয়েছিলাম। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছি। আয়ারল্যান্ড জাতীয় দলের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ৪ ওভারে ৩০ রানে ১ উইকেট শিকার করি। ব্যাটিংয়ে নামার সুযোগ হয়নি। দ্বিতীয় ম্যাচে ৪ ওভারে ৩৫ রানে ১ উইকেট। ব্যাটিংয়ে অপরাজিত ২৪ রান করেছিলাম। এটিই ছিল আমাদের দলের সর্বোচ্চ। বৃষ্টির কারণে পরে খেলা আর মাঠে গড়ায়নি। আমাদের সময় : সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে টেস্টের পর এবার আপনার ওয়ানডেতে অভিষেক হতে চলেছে... নাঈম হাসান : দেখা যাক। ওখানে (আয়ারল্যান্ড) যেহেতু খেলার অভিজ্ঞতা আছে; যদি দলে সুযোগ পাই অতীতের অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর চেষ্টা করব। আমাদের সময় : একাদশে সুযোগ পেলে ব্যক্তিগত লক্ষ্য কী থাকবে? নাঈম হাসান : তেমন কোনো লক্ষ্য নেই। বোলিং-ব্যাটিং-ফিল্ডিংÑ তিন বিভাগেই মাঠে শতভাগ দিতে চাই। আমাদের সময় : আয়ারল্যান্ডের কন্ডিশনে ভালো বোলিং করাটা একজন অফস্পিনারের জন্য কতটা চ্যালেঞ্জিং? নাঈম হাসান : উইকেট পাওয়াটা ভাগ্যের ব্যাপার। আমার চেষ্টা থাকবে রান চেক দিয়ে উইকেট নেওয়ার। বাকিটা আল্লাহর ইচ্ছা। আমি আমার শতভাগ দেওয়ার চেষ্টা করব। আমাদের সময় : ব্যাটিংয়ে আপনার পছন্দের কোনো পজিশন আছে কিনা? নাঈম হাসান : আমি সাধারণত ৬Ñ৭ এ ব্যাটিং করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। আমাদের সময় : আপনার আদর্শ কে? নাঈম হাসান : অস্ট্রেলিয়ার নাথান লায়ন। আমাদের সময় : ভবিষ্যতে নিজেকে কোন জায়গায় দেখতে চান? নাঈম হাসান : আমার ইচ্ছা বিশ্বমানের স্পিনার হওয়া।