advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৬ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৬ মে ২০১৯ ০৮:৫৫
advertisement

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান বলেছেন, দুর্নীতিবাজরা যদি দুর্নীতি করে পার পেয়ে যায় তা হলে অন্যরা আশকারা পেয়ে যাবে। মানুষ যদি মনে করে দুর্নীতি করলে কিছু হয় না, তা হলে মানুষ দুর্নীতি করতে উৎসাহ পাবে। দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় আমাদের সময়ের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

অধ্যাপক কামরুল হাসান খান বলেন, স্বাস্থ্য খাতের ১১টি দুর্নীতির উৎস সম্পর্কে যে প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে এসব বিষয়ে অবশ্যই তাদের কাছে তথ্য-প্রমাণ আছে। এই বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। প্রতিবেদন তৈরি করে পাঠানো হলে তো লাভ হবে না। যথাযথ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে দ্রুত অ্যাকশনে যেতে হবে। দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া যদি আমাদের দেশে ডেভেলপ না করে তা হলে দুর্নীতি কমানো যাবে না। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে আমাদের সব প্রক্রিয়ায় সেই কমিটেড লোক আছে কিনা যে আমরা সত্যি দুর্নীতি বন্ধ করতে চাই। তিনি বলেন, দুর্নীতি প্রতিরোধে পর্যবেক্ষণ করার পদ্ধতি এবং পর্যবেক্ষণকারী দ্বারা দুর্নীতির ক্ষেত্রগুলো সুপারভিশন করতে হবে। প্রতিষ্ঠানগুলোয় বিভিন্ন কমিটি আছে। এসব কমিটির মধ্যে যারা থাকেন তারা যদি অসৎ হন তা হলে দুর্নীতি হবে। সুপারভিশনটাও খুবই জরুরি। সুপারিভশনটা ঠিকমতো হচ্ছে না। এ ক্ষেত্রে কাউন্টার চেকের ব্যবস্থা থাকতে হবে।

অধ্যাপক কামরুল হাসান খান বলেন, যেসব দায়িত্বপূর্ণ জায়গা রয়েছে, যেখান থেকে দুর্নীতি শুরু হয়। সেখানে সৎ ব্যক্তিকে দায়িত্বে রাখতে হবে। যারা নিয়োগ দেন তাদের দায়িত্ব যাকে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে সেই লোকটি সৎ কিনা তা যাচাই করে নিয়োগ দেওয়া। দায়িত্বশীল জায়গাগুলোয় সৎ লোক না রাখা যায় তা হলে দুর্নীতি হবেই।

advertisement