advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আদালতে দায় স্বীকার করল তিন যুবক

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
১৬ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৬ মে ২০১৯ ০৯:১৫
advertisement

সদর উপজেলার দুর্গম বড়পাড়া এলাকায় গণধর্ষণের পর ধনিতা ত্রিপুরা নামে এক কিশোরীকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে তিন যুবক। তারা হচ্ছে রুমেন ত্রিপুরা (২২), কম্বল ত্রিপুরা (২০) ও ত্রিরণ ত্রিপুরা (২২)।

গতকাল বুধবার খাগড়াছড়ি চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এফএম জিল্লুর রহমানের আদালতে তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। পরে বিচারক তাদের কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন।

গত মঙ্গলবার রাতে ধনিতার মা স্বরলেখা ত্রিপুরা বাদী হয়ে দসিন্দ্র্র ত্রিপুরার ছেলে রুমেন ত্রিপুরা, মৃত যতেন্দ্র ত্রিপুরার ছেলে কম্বল ত্রিপুরা ও মৃত তনিন্দ্র ত্রিপুরার ছেলে ত্রিরণ ত্রিপুরাকে আসামি করে খাগড়াছড়ি সদর থানায় ধর্ষণ ও হত্যা মামলা দায়ের করেন। আসামিরা সবাই সদর উপজেলার ভাইবোনছড়া ইউনিয়নের ভিজাচন্দ্র কার্বারীপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাহাদাৎ হোসেন টিটো জানান, ধনিতার মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে মঙ্গলবার রাতেই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এর আগে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ঘটনার পরদিন দুপুরে ওই তিন যুবককে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ধর্ষণের পর হত্যার কথা স্বীকার করে। তারা জানায়, ঘটনার রাত ১০টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ধনিতাকে তারা ধর্ষণ করে ও পরে শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

ধনিতা ত্রিপুরার মা স্বরলেখা ত্রিপুরা অভিযোগ করেন, আসামি রুমেন ত্রিপুরা ধনিতাকে বিয়ে করার জন্য দীর্ঘদিন ধরে চাপ প্রয়োগ করে আসছিল। গত সোমবার রাতেও ফোন করে মেয়েকে উঠিয়ে নেওয়ার হুমকি দেয় সে। এর পরই ধনিতাকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ ও শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়।

advertisement