advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সংসদীয় কমিটির অসন্তোষ

২০ মে ২০১৯ ০১:২৫
আপডেট: ২০ মে ২০১৯ ০৮:৫০
advertisement

সাগরে গ্যাস অনুসন্ধান কাজে অগ্রগতি না দেখে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। গতকাল রবিবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার সময় সদস্যরা অসন্তোষ প্রকাশ করেন। এ ছাড়া মন্ত্রণালয়কে নতুন কনডেনসেট প্ল্যান্ট নির্মাণের অনুমতি না দেওয়ার সুপারিশ কর হয়।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মো. শহীদুজ্জামান সরকার সাংবাদিকদের বলেন, আমরা বিদেশ থেকে এলএনজি কিনছি। এর জন্য অবকাঠামো নির্মাণ করছি। এই এলএনজি সমুদ্রপথেই আসছে। কিন্তু যে বিশাল সমুদ্রসীমা আমরা অর্জন করেছি, সেখান থেকে গ্যাস উত্তোলন করছি না। সমুদ্র থেকে গ্যাস উত্তোলনে যে রকম কার্যক্রম নেওয়ার কথা, সে রকম করা হচ্ছে না। আমরা মন্ত্রণালয়কে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলেছি।

বৈঠকে ২০২৩ সালের মধ্যে ৫ হাজার মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহের চ্যালেঞ্জ উত্তরণে গৃহীত পরিকল্পনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা করা হয়। কমিটি দেশের সব স্থানে সমপরিমাণ গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করার পাশাপাশি ‘অফশোর’ গ্যাস আহরণে আরও বেশি কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সুপারিশ করে। বৈঠকে সারাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি স্থাপনাগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার সুপারিশ করা হয়।

এ ছাড়া বৈঠকে দেশে স্থাপিত কনডেনসেট প্ল্যান্টগুলোয় পর্যাপ্ত কনডেনসেট সরবরাহ করার সক্ষমতা না থাকলেও মন্ত্রণালয় থেকে যেন কনডেনসেট প্ল্যান্ট নির্মাণের অনুমতি না দেওয়া হয়, তার সুপারিশ করা হয়েছে। এ ছাড়া কনডেনসেটের মূল্য যেন আমদানি করা জ্বালানি তেলের চেয়ে বেশি না হয় এবং কোনোভাবেই বিদেশ থেকে আমদানির অনুমতি দেওয়া না হয়, সে বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়।

শহীদুজ্জামান সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য আবু জাহির, আলী আজগার, এসএম জগলুল হায়দার, নূরুল ইসলাম তালুকদার, আছলাম হোসেন সওদাগর, খালেদা খানম ও নার্গিস রহমান অংশ নেন।

advertisement