advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

‘দিদি’ ডাকায় মাছের ঝুড়িতে এসিল্যান্ডের লাথি, মীমাংসা করলেন এমপি

নিজস্ব প্রতিবেদক
২০ মে ২০১৯ ২৩:২১ | আপডেট: ২১ মে ২০১৯ ১২:৫৮

সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় এক সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) ‘দিদি’ ডাকায় ব্যবসায়ীর মাছের ঝুড়িতে লাথি দিয়ে ড্রেনে ফেলে দেওয়ার ঘটনাটি মীমাংসা করেছেন সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী।

আজ সোমবার দুপুরে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আয়েশা হকের কার্যালয়ে এক বৈঠকে বিষয়টি মীমাংসা করা হয়।

advertisement

সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল বাসার মোহাম্মদ বদরুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘এমপি স্যার নিজে উদ্যোগ নিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করে দেন। বৈঠকে ব্যবসায়ী নেতা ও জনপ্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন। বিষয়টি সমাধানে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন মাছ ব্যবসায়ী হাসান মিয়া ও লায়েক আহমেদ।’

এ বিষয়ে সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আগামীতে মাছ ব্যবসায়ীদের জন্য জায়গা নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। তারা যেন সেখানে বসে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারেন এজন্য সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হবে।’

ওই বৈঠকে সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী ছাড়াও ইউএনও আয়েশা হক, এসিল্যান্ড সঞ্চিতা কর্মকার, মাইজগাঁও ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল বাসিত, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম মুরাদসহ ব্যবসায়ী নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ১২ মে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার পূর্ববাজার ডাকবাংলোর সামনে বসে মাছ বিক্রি করছিলেন লায়েক আহমদ নামে এক মৎস ব্যবসায়ী। এ সময় এসিল্যান্ড সঞ্চিতা কর্মকার তাকে মাছের ঝুড়ি সরিয়ে নেওয়ার জন্য নির্দেশ দিলে লায়েক তাকে ‘দিদি’ বলে ডাকেন। এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ব্যবসায়ীর মাছের ঝুড়ি লাথি দিয়ে ড্রেনে ফেলে দেন।