advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সরকারকে আন্তরিক হতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
২১ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২১ মে ২০১৯ ০০:৪৬
advertisement

সমুদ্রে তেল গ্যাস অনুসন্ধানে পিছিয়ে পড়ার কারণ খুঁজতে গিয়ে অশুভ শক্তির কথাই বললেন জ্বালানি বিশেজ্ঞ ড. শামসুল আলম। তিনি বলেন, বাংলাদেশের জ্বালানি খাত অশুভ শক্তির হাতে নিয়ন্ত্রিত। এখানে জনগণের স্বার্থ বিবেচনা করে খুব কম সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিদ্যুৎ ও

জ্বালানি খাতে অধিকাংশ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় ব্যবসায়ীদের স্বার্থের কথা বিবেচনা করে। তিনি বলেন, দেশের তেল গ্যাস উত্তোলনে জোর না দিয়ে বিদেশ থেকে এলএনজি আমদানিতে ঝুঁকে পড়ছে সরকার। কারণ এখানে রয়েছে ব্যবসা-বাণিজ্যের নানা হিসাব। যেখানে সমুদ্রে তেল গ্যাস উত্তোলনে মিয়ানমার ও ভারত এগিয়ে, সেখানে আমরা কিছুই করতে পারছি না। এটা সততা ও অদক্ষতার প্রতিফলন।

তিনি বলেন, আরও অনেক আগেই সমুদ্রে তেল গ্যাস উত্তোলনে জোরালো ভূমিকা রাখা দরকার ছিল। কিন্তু সরকারের সে রকম কোনো তৎপরতা চোখে পড়ছে না। শুধু সমুদ্রে নয়, স্থলভাগের তেল গ্যাস উত্তোলনেও কার্যকর ভূমিকা নেই। দেশের বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো এখনো আমাদানিনির্ভর জ্বালানি তেল, গ্যাস বা এলএনজি ও কয়লার ওপর নির্ভর করছে। আমাদানি মানেই কমিশনভোগী ও সুবিধাভোগীদের লাভ।

ড. শামসুল আলম বলেন, সরকার যদি আন্তরিক থাকত, তা হলে দেশীয় প্রাকৃতিক সম্পদ উত্তোলনে বেশি মনোযোগী হতো।