advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

যুদ্ধ হলে ইরান ধ্বংস হবে : ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২১ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২১ মে ২০১৯ ০০:৪৭
advertisement

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, যুদ্ধ বাঁধলে ইরানের অস্তিত্ব বিলীন হবে, তারা ধ্বংস হবে। গত রবিবার নতুন এক টুইটে এমন হুশিয়ারি দিয়েছেন ট্রাম্প। খবর বিবিসি।

মধ্যপ্রাচ্যে চলমান উত্তেজনার মধ্যে ইরান, সৌদি আরব ও যুক্তরাষ্ট্রÑ এই তিন পক্ষ্যই সম্প্রতি জানিয়েছেন তারা যুদ্ধ চায় না। ঠিক এমন সময়েই ট্রাম্প এ হুশিয়ারি দিলেন।

এর আগে শনিবার সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা ইরানের সঙ্গে কোনো যুদ্ধ চায় না; কিন্তু নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষায় তারা সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। এর আগে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেনÑ ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধ চায় না। অন্যদিকে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি বলেছেন, ইরান যুদ্ধ চায় না। বিশ্লেষক মহল প্রশ্ন তুলেছেন, যদি কোনো পক্ষই যুদ্ধ না চায়, তা হলে এই যুদ্ধ পরিস্থিতি বিরাজ করছে কেন?

পারমাণবিক চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র বেরিয়ে যাওয়ার পর থেকেই ইরান-মার্কিন সম্পর্কের অবনিত হয়। এরপর গত সপ্তাহে সৌদি আরবের তেলবাহিনী জাহাজে সন্ত্রাসী হামলার প্রেক্ষাপটে উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়। এর মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র উপসাগরে যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন করেছে। এমন পরিস্থিতির মধ্যেই ট্রাম্প গত রবিবার ইরানকে ধ্বংসের হুশিয়ারি দেয়। নিজের টুইটে ট্রাম্প বলেছেন, ইরান যদি যুদ্ধ চায়, তা হলে সেটিই হবে ইরানের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি। আর কখনই যুক্তরাষ্ট্রকে হুমকি নয়!

এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বাগদাদের ‘গ্রিন জোনে’ নিক্ষিপ্ত রকেট যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসে আঘাত করেনি, এতে কেউ হতাহত হয়নি এবং উল্লেখযোগ্য কোনো ক্ষতিও হয়নি। তবে ঘটনাটি যে যুক্তরাষ্ট্র গুরুতর হিসেবে বিবেচনা করছে তা দেশটি জানিয়েছে। এর আগে ইরাকের মার্কিন দূতাবাসে কর্মরত খুব অপরিহার্য নয় এমন কর্মকর্তাকে দেশে ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। বাগদাদের গ্রিন জোটে রকেট নিক্ষেপ নিয়ে মার্কিন কর্মকর্তা এক বিবৃতিতে জানানÑ গত দুই সপ্তাহ ধরে আমরা পরিষ্কারভাবে বলে আসছি এবং আবারও বলছিÑ যুক্তরাষ্ট্রের লোকজন ও স্থাপনার ওপর হামলা সহ্য করা হবে না এবং নিষ্পত্তিমূলক ভঙ্গিতে এর জবাব দেওয়া হবে। ইরান সমর্থিত মিলিশিয়া বাহিনীগুলো বা এ রকম কোনো বাহিনীর কোনো অংশ এ ধরনের কোনো হামলা চালালে আমরা ইরানকে দায়ী বলে গণ্য করব এবং সেই অনুযায়ী ইরানকে জবাব দেব।

advertisement