advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পুঁজিবাজারে বড় দরপতন

নিজস্ব প্রতিবেদক
২১ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২১ মে ২০১৯ ০০:৪৮
advertisement

একদিনের ব্যবধানে শেয়ারবাজারে বড় ধরনের দরপতন হয়েছে। শেয়ারবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এক্সপোজার সংশোধনীর প্রজ্ঞাপন জারির সংবাদে রবিবার শেয়ারবাজারে বড় উত্থান হয়। তবে পরের কার্যদিবস গতকাল সোমবার উল্টো বড় দরপতন হয়েছে।

অবশ্য বাজারে অস্বাভাবিক উত্থান-পতনের কোনো কারণ নেই বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। তারা মনে করেন, বাজারে হয়তো কোনো গ্যাং কাজ করছে। তাদের খুঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনার পরামর্শ দেন তারা। এ বিষয়ে পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক আবু আহমেদ আমাদের সময়কে বলেন, রবিবার বাজারে স্বাভাবিক উত্থান হলে সোমবার অস্বাভাবিক পতন হওয়ার কথা নয়। কিন্তু দরপতন হয়েছে। তিনি মনে করেন, বাজারে হয়তো কোনো গ্যাং এসব উত্থান-পতনের পেছনে আছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৫৯ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ২৭৬ পয়েন্টে নেমেছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১৯৯ পয়েন্টে। আর ডিএসই-৩০ সূচক ১৬ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৮৩৩ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। মূল্যসূচকে পতনের দিনে গতকাল ডিএসইতে যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে তার পাঁচগুণের বেশি। দিনভর বাজারটিতে লেনদেনে অংশ নেওয়া মাত্র ৫০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। বিপরীতে কমেছে ২৬২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩০টির দাম। অন্যদিকে ডিএসইতে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। দিনভর বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩৮৭ কোটি ৭৩ লাখ টাকার শেয়ার। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪৪৩ কোটি ৫৫ লাখ টাকার শেয়ার। সে হিসাবে লেনদেন কমেছে ৫৫ কোটি ৮২ লাখ টাকা।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএসসিএক্স ১২২ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৯ হাজার ৭৪৮ পয়েন্টে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১০ কোটি ৬৫ লাখ টাকার শেয়ার। লেনদেন অংশ নেওয়া ২৩৯টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৪৬টির, কমেছে ১৬৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টির।

advertisement