advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ব্যবহারকারীদের জন্য দুঃসংবাদ

মাজেদুল হক তানভীর
২১ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২১ মে ২০১৯ ১৯:০২
advertisement

মাইক্রোসফটের জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেম উইন্ডোজ৭। বিশ্বের কয়েক মিলিয়ন মানুষ তাদের কম্পিউটারে এই অপারেটিং সিস্টেমটি ব্যবহার করছে। তবে বিশ্বব্যাপী উইন্ডোজ৭ ব্যবহারকারীদের জন্য বড় ধরনের দুঃসংবাদ হচ্ছে, এ অপারেটিং সিস্টেমটি এ বছরই নিশ্চিন্তে ব্যবহার করা যাবে।

২০২০ সালের ১৪ জানুয়ারি থেকে উইন্ডোজ৭-এর নিরাপত্তা আপডেট বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে মাইক্রোসফট। ওই সময়ের পর উইন্ডোজ৭ ব্যবহার অব্যাহত রাখলে তার দায়িত্ব মাইক্রোসফট নেবে না বলে জানিয়েছে। তবে বাণিজ্যিক ব্যবহারকারীরা নির্দিষ্ট অর্থের বিনিময়ে সময়সীমা বৃদ্ধির সুযোগ পাবেন।

আগামী বছরের ১৪ জানুয়ারি থেকে সাধারণ ব্যবহারকারীদের জন্য উইন্ডোজ৭ ব্যবহার করাটা খুব ঝুঁকিপূর্ণ বিষয় হবে সতর্ক করা হয়েছে। কারণ নিরাপত্তা আপডেট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় কম্পিউটার সহজেই ভাইরাস ও ম্যালওয়্যার আক্রমণের ঝুঁকিতে থাকবে। মাইক্রোসফট ইতোমধ্যে উইন্ডোজ৭ বিক্রি ও নতুন ফিচার আপডেট বন্ধ করে দিয়েছে।

২০০৯ সালের ২২ অক্টোবর ওই অপারেটিং সিস্টেমটি বাজারে নিয়ে আসে মাইক্রোসফট। পরে ২০১২ সালের ২৬ অক্টোবর আরও উন্নত অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে উইন্ডোজ৮ নিয়ে আসে। কিন্তু স্টার্ট মেন্যু না থাকাসহ কিছু কারণে উইন্ডোজ৮ ও ৮.১ ব্যবহারে অনেকেই আগ্রহী হননি, এমনকি পরবর্তী ভার্সন উইন্ডোজ ভিস্তাতেও আগ্রহ দেখাননি- বরং পুরনো ভার্সন উইন্ডোজ৭-এই আগ্রহ দেখিয়েছেন। কিন্তু এখন মাইক্রোসফট চাচ্ছে, সব ব্যবহারকারী যেন উইন্ডোজের সর্বশেষ ভার্সন উইন্ডোজ১০ ব্যবহার করে। এ জন্যই উইন্ডোজ৭ বন্ধের সিদ্ধান্ত।

বর্তমানে বিশ্বের ৪২.২ শতাংশ কম্পিউটার ব্যবহারকারী উইন্ডোজ৭ ব্যবহার করছেন। আর উইন্ডোজ১০ ব্যবহার করছেন ৪৫.৫ শতাংশ কম্পিউটার ব্যবহারকারী। উইন্ডোজ৭-এর নিরাপত্তাসেবা বন্ধের ঘোষণা আসায় বেশ বিপাকেই পড়তে হবে ব্যক্তিগত পর্যায়ে ব্যবহারকারীদের। নিরাপত্তার ঝুঁকিতে পুরোপুরি অরক্ষিত হয়ে পড়বে কম্পিউটারগুলো। ঝুঁকি এড়ানোর একমাত্র উপায় হচ্ছে উইন্ডোজ১০ অপারেটিং সিস্টেমে আপডেট হওয়া। তথ্য সূত্র : মিরর।

advertisement