advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি: জীবিত ১৫ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছে

অনলাইন ডেস্ক
২১ মে ২০১৯ ১৩:১১ | আপডেট: ২১ মে ২০১৯ ১৩:১১
১১ মে ২০১৯, ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় জীবিত উদ্ধার ব্যক্তিদের তিউনিসিয়ার জার্জিস শহরে রেড ক্রিসেন্টের একটি আশ্রয় কেন্দ্রে নেওয়া হয়। ছবি: রয়টার্স

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় জীবিত ১৫ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। আজ মঙ্গলবার সকাল ৬টার দিকে তারা ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান। সাগরপথে অবৈধভাবে লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার সময় নৌকাডুবির ঘটনায় প্রাণে বেঁচে যান তারা। জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইএমও) তত্ত্বাবধানে ও রেড ক্রিসেন্টের সহযোগিতায় তারা দেশে ফিরেছেন।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কে কর্তব্যরত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক আতাউর রহমান বলেন, ‘তারা ভোর ৫টা ৫০ মিনিটে টার্কিশ এয়ারলাইন্সের টিকে-৭১২ বিমানে করে দেশে পৌঁছান। তাদের সঙ্গে বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কথা বলছেন।’

রেড ক্রিসেন্টের ঢাকা সদর দপ্তরের অ্যাডমিনেস্ট্রেটর (পারিবারিক পুনঃযোগাযোগ স্থাপন বিভাগ) নাজমুল হক  বলেন, ‘ভূমধ্যসাগরে ৯ ও ১০ মে পরপর দু’টি নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে। দুইদিনই নৌকায় বাংলাদেশি নাগরিক ছিল। ৯ মে যে নৌকাটি ডুবে যায় সেটিতে অভিবাসী ছিল ৮১ জন। এই নৌকাটি ভূমধ্যসাগরে ছাড়ার ৮-১০ ঘণ্টা পর অর্থাৎ শুক্রবার রাতে আরেকটি নৌকা ছেড়ে দেয় দালালরা। সেটিতে অভিবাসী ছিল ৫৭ জন।

ওই নৌকায় থাকা বাংলাদেশিরা জানিয়েছেন, তারা ইতালির উপকূলে চলে গিয়েছিল। উপকূলের কাছাকাছি যাওয়ার পর তাদের নৌকার ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে যায়। এরপর তারা স্রোতে ভাসতে ভাসতে ফের মাঝ সমুদ্রে চলে আসে। নৌকাটি এক পর্যায়ে ডুবে যায়। তখন তিউনিশিয়ার নেভি ও জেলেরা ১৫ জন বাংলাদেশিকে উদ্ধার করে। রেড ক্রিসেন্ট তাদের চিকিৎসা দেয়। আইএমও তাদের নিয়ে কাজ শুরু করে। শেষের দিন ডুবে যাওয়া নৌকার অভিবাসীরাই আজকে ফিরেছেন।’

ফিরে আসা ব্যক্তিদের শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা জিজ্ঞাসাবাদ করছে। এরপর তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।