advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

টিভি চ্যানেল বনাম অনলাইন প্ল্যাটফরম

ফয়সাল আহমেদ
২৩ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ মে ২০১৯ ০১:২৫
advertisement

এবারের ঈদে নাটক, ওয়েব সিরিজ এমনকি চলচ্চিত্রও মুক্তি পাচ্ছে ইউটিউবে। অন্যদিকে টিভি চ্যানেলেও থাকছে সব অনুষ্ঠান। তা হলে কি ইউটিউবের কাছে অচিরেই ধরাশয়ী হচ্ছে টিভি চ্যানেল?

বিষয়টা নিয়ে অনেক বছর ধরেই আলোচনা চলছে। আলোচনার ধরনটা তখন ছিল ভিন্নÑ মানুষ টিভি চ্যানেল দেখছেন না। কারণ চ্যানেলে অনুষ্ঠান প্রচার হওয়ার কিছু সময় পরই সেটি প্রকাশিত হয় টিভি চ্যানেলটির নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে। অনেক সময় প্রচার আর প্রকাশ হয় প্রায় একই সময়। ফলে দর্শক টিভিতে না দেখে অনুষ্ঠান দেখেছে ইউটিউবে।

তখন কিন্তু ইউটিউবের জন্য আলাদা কনটেন্ট খুব একটা হতো না। চিত্রটা এখন একদম ভিন্ন। এখন ইউটিউবের জন্যই আলাদা কনটেন্ট তৈরি করছে নির্মাতারা। সেটা দিয়ে আবার জানতেও পারছেন কার নির্মাণ কতজন দেখেছেন। সামনে ঈদ। ঈদ উপলক্ষে টিভি চ্যানেলের জন্য প্রতি বছরই নির্মিত হয় অসংখ্য নাটক, টেলিছবি, গানের অনুষ্ঠান, ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান।

এসব অনুষ্ঠানের প্রতি দর্শক আগ্রহও থাকে প্রচুর। প্রিয় অনুষ্ঠান দেখার জন্য রিমোট নিয়ে বসে থাকেন দর্শক। এবার কী এমন কিছু হবে? প্রশ্ন উঠেছে কারণ, এবার দেখা যাচ্ছে টিভি চ্যানেলের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ইউটিউবের জন্য অনুষ্ঠান নির্মাণ করা হচ্ছে। বোঝাই যাচ্ছে টিভির দর্শকে পুরোপুরি ভাগ বসাবে ইউটিউব। শুধু যে নাটক-টেলিছবি প্রকাশ হচ্ছে ইউটিউবে তা কিন্তু নয়। নতুন চলচ্চিত্র মুক্তি দেওয়া হবে ইউটিউবে। ছবির নাম ‘দি ডিরেক্টর’।

খবরটি নিশ্চিত করেছেন ছবির পরিচালক কামরুজ্জামান কামু। কোনো উৎসবে প্রেক্ষাগৃহের বাইরে নিজ উদ্যোগে সিনেমা প্রদর্শনের নজির থাকলেও পাবলিক ¯িদ্ব্রমিং-এ মুক্তির খবর এর আগে দেশে শোনা যায়নি। ছবিটিতে অভিনয় করেছেন মারজুক রাসেল, পপি, মোশাররফ করিম, নাফা, কচি খন্দকার, তারেক মাহমুদ, তানভীন সুইটিসহ অনেকে।

এ দিকে ঈদের অনুষ্ঠানের এখন চলছে শেষ মুহূর্তের কাজ। ফলে ব্যস্ত সময় পার করছেন নাটকের শিল্পী ও নির্মাতারা। ঈদের আগের দিন পর্যন্ত থাকে এ ব্যস্ততা। ঈদে এবার টেলিভিশনের বাইরে প্রায় ২০টি ইউটিউব চ্যানেলে শতাধিক নাটক ও টেলিছবি আসবে। চ্যানেলগুলো হলোÑ সাউন্ডটেক, বঙ্গবিডি, বঙ্গবুম, ডেডলাইন এন্টারটেইনমেন্ট, সিনেমাওয়ালা, সিডি চয়েস, ঈগলস, ধ্রুব টিভি, সেভেন টিউনস এন্টারটেইনমেন্ট, এফ-থ্রি ও নাটক বক্স ইত্যাদি। টিভি চ্যানেলের নাটক-টেলিছবির মতো ইউটিউবের চ্যানেলগুলোতে থাকছে জনপ্রিয় সব অভিনয়শিল্পীদের কনটেন্ট।

ইউটিউবে যেহেতু কত ভিউ হলো সেটা দেখা যায়, স্বাভাবিক কারণে তারকাদের কদর সেখানে বেশি। এবার ঈদের এ দুই মাধ্যম দাপিয়ে বেড়াবেন যেসব তারকারা, তাদের মধ্যে আছেনÑ জাহিদ হাসান, চঞ্চল চৌধুরী, মোশাররফ করিম, মীর সাব্বির, নুসরাত ইমরোজ তিশা, অপূর্ব, আফরান নিশো, মেহজাবিন, তানজিন তিশা, মম, ভাবনা, ঈশানা, অহনা, জোভান, তৌসিফ, সাফা কবির, সিয়াম আহমেদ, শামিম জামান. অর্ষাসহ অনেকেই। এখন অপেক্ষা শুধু ঈদের। দেখার বিষয় দর্শকের কাছে ইউটিউব নাকি টিভি চ্যানেল কোন মাধ্যমের নাটকগুলো গ্রহণযোগ্যতা বেশি পাবে।

এই ঈদে আড়াল ভেঙে দর্শকের সামনে আসছেন অভিনেত্রী সারিকা। চ্যানেল আইয়ের ‘চুল তার কবে কার’ শিরোনামের একটি টেলিছবিতে দেখা যাবে তাকে। এটি নির্মাণ করেছেন তুহিন হোসেন। বেশ কিছু ধারাবাহিক নাটকে থাকছেন অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। ঈদের জন্য তিনি শেষ করেছেন মাসুদ সেজানের ‘ঈদ ধামাকা অফার’, সাগর জাহানের ‘সৌদি গোলাপ’ ও ‘তালমিছরি না হাওয়া মিঠাই’ শিরোনামের ধারাবাহিকগুলো। এ ছাড়া ঈদে খ- নাটকেও দেখা যাবে তাকে। জাহিদ হাসানকে দেখা যাবে শেখ সেলিমের নাটক ‘মামুন মামা’ এবং সাগর জাহানের ‘সৌদি গোলাপ’, ‘ডায়বেটিস’ ও ‘আলাল-দুলাল’সহ বেশ কিছু নাটকে।

আফরান নিশো ও তানজিন তিশা থাকছেন ‘ক্রেজি লাভার, ‘ব্রেকআপ’, ‘ফ্রেন্ডস ভার্সেস টিচার’, ‘ফিরে আসি বারবার’, ‘দেখা হবে আবারও’, ‘মাকে দেওয়া কথাটা’ শীর্ষক নাটকগুলোতে।

আনিসুর রহমান মিলনের অভিনয়ে প্রচার হবে নাটক ‘আব্বা উকিল ডাকবো’ ও ‘আইজু দ্যা ভাই’। সালাহউদ্দিন লাভলুর পরিচালনায় ঈদে থাকছে দুটি নাটক। এর মধ্যে একটি হলো সাত পর্বের, অন্যটি খ- নাটক। নাটক দুটি হলো ‘হানিমুন হবে কক্সবাজারে’ ও ‘আবার দেখা হলে’। মমকে দেখা যাবে শিহাব শাহিনের ‘বাউন্ডুলে’ ও সুমন আনোয়ারের ‘অন্ধকার ঢাকা’সহ বেশ কিছু নাটকে।

মৌসুমী হামিদ শেষ করেছেন ফরিদুল হাসানের ‘বউয়ের দোয়া পরিবহন’ ও তরিকুল ইসলামের ‘আমি তো সে না’ শিরোনামের দুটি ধারাবাহিক ও শহীদুন নবীর ‘কন্যা বিবাহযোগ্য নহে’সহ কয়েকটি খ- নাটকের শুটিং। মেহজাবিন ঈদে থাকছেন মহিদুল মহিনের ‘আনোয়ার দ্য প্রোডাকশন বয়’, মিজানুর রহমান আরিয়ানের ‘প্রতি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাতটা’সহ একাধিক নাটকে।

সজল থাকবেন ‘তোতামিয়ার হানিমুন’, ‘দোস্ত দুশমন’, ‘কানা মাছি’, ‘আহত বেলি ফুল ও সুগন্ধি কলোনি’ এবং ‘বাম দিক থেকে চলুন’সহ একাধিক নাটকে। এক বছর পর ঈদে দুটি নাটকে দেখা যাবে নাদিয়া মিমকে।