advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দুই বছরে ১২ লাখ টাকা আত্মসাৎ

চকরিয়া প্রতিনিধি
২৩ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ মে ২০১৯ ০৯:৪৫
advertisement

কক্সবাজারের চকরিয়ায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিভিন্ন অনিয়ম তদন্তে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল বুধবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এ অভিযান চলে। এতে হাসপাতালের বিভিন্ন অনিয়ম খুঁজে পান দুদক কর্মকর্তারা।

অভিযান শেষে ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরিচ্ছন্নকর্মী নিয়োগ দেখিয়ে দুই বছরে ১২ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনা ধরা পড়েছে। দুদক চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক মোহাম্মদ রিয়াজ উদ্দিনের নেতৃত্বে একটি দল এ অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযান শেষে রিয়াজ উদ্দিন বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিসংখ্যানবিদ আমির হামজা ২০০৬ সালে হাসপাতালে যোগদান করে এখনো বহাল তবিয়তে আছেন। তিনি একসঙ্গে পরিসংখ্যানবিদ, হিসাবরক্ষক ও ক্যাশিয়ারের দায়িত্ব পালন করছেন। দুদক কর্মকর্তা আরও বলেন, হাসপাতালের জেনারেটর গত ১০ বছর ধরে বিকল থাকলেও ২০১৬ সাল পর্যন্ত ভালো দেখিয়ে জ্বালানি বাবদ অনেক টাকা লুটপাট করা হয়েছে।

২০১৬ সাল থেকে কোনো লগ বুক তৈরি না করে প্রতি বছর ২০ হাজার টাকা করে খরচ দেখানো হয়েছে। এ ছাড়া নামে-বেনামে মাস্টার রোলে হাসপাতালের পরিচ্ছন্নকর্মী নিয়োগ দেখিয়ে ভুয়া বিল ভাউচারের মাধ্যমে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৫ লাখ ৯৫ হাজার টাকা ও ১ জুলাই ২০১৮ থেকে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬ লাখ টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ শাহবাজ অফিসিয়াল কাজে চট্টগ্রাম শহরে থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।