advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

চালের আমদানি শুল্ক দ্বিগুণ হলো

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৩ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ মে ২০১৯ ০৯:১৩
advertisement

চাল আমদানিতে রেগুলেটরি ডিউটি (নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক) আরোপ করেছে সরকার। কৃষকদের লোকসানের হাত থেকে বাঁচাতে বিভিন্ন মহলের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল বুধবার এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। যা গতকাল থেকেই কার্যকর হয়েছে।

আগে চাল আমদানিতে মোট করভার ছিল ২৮ শতাংশ। তা বাড়িয়ে ৫৫ শতাংশ করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, চাল আমদানির ক্ষেত্রে রেগুলেটরি ডিউটি ২৫ শতাংশ করা হয়েছে। এই শুল্ক আগে ৩ শতাংশ ছিল। এ ছাড়াও চালের ওপর ৫ শতাংশ হারে অগ্রিম আয়কর আরোপ করা হয়েছে। পাশাপাশি আগের ২৫ শতাংশ আমদানি শুল্কও বহাল রাখা হয়েছে। এনবিআর বলছে, সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চাল আমদানি নিরুৎসাহিত করতে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া জানান, চলতি অর্থবছরের ১০ মাসে প্রায় তিন লাখ ৩ হাজার মেট্রিক টন চাল আমদানি করা হয়েছে। এতে কৃষক উৎপাদন খরচের চেয়ে কম দামে চাল বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন। ফলে প্রান্তিক কৃষক বিপুল আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন। কৃষককে আর্থিক ক্ষতি থেকে রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় চাল আমদানির শুল্ক বাড়ানো হয়েছে।

গত ১৯ মে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানিয়েছিলেন, কৃষকদের ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে চাল আমদানিতে কঠোর হবে সরকার এবং আমদানি নিরুৎসাহিত করতে অতিরিক্ত শুল্ক আরোপ করা হবে। বোরো ধান তোলার এই মৌসুমে দেশে ধানের দাম অস্বাভাবিক কমে গেছে। ধান বিক্রি করে উৎপাদন খরচও তুলতে পারছেন না কৃষকরা। এতে তাদের মধ্যে হতাশা ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। কোনো কোনো জায়গায় কৃষকরা ধানে আগুন লাগিয়ে ও রাস্তায় ধান ফেলে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।