advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আ.লীগ প্রার্থী দেওয়ায় জাপায় ক্ষোভ

প্রদীপ মোহন্ত,বগুড়া
২৩ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ মে ২০১৯ ০০:৫৫
advertisement

পর পর দুবার বগুড়া-৬ (সদর) আসনটি মহাজোটকে ছেড়ে দেওয়া হলেও এবার এ আসনে দলীয় প্রার্থী দিয়েছে আওয়ামী লীগ। এরই মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক টি জামান নিকেতাকে প্রার্থী ঘোষণা করেছে ক্ষমতাসীন দলটি।

এতে মহাজোটের শরিক দল হিসেবে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

তারা বলছেন, প্রতিবারের মতো জোটের জন্য এ আসনটি ছাড় দেওয়া না হলে তারাও দলীয়ভাবে নির্বাচনে অংশ নেবে। এদিকে গতকাল বুধবার বগুড়া জেলা নির্বাচন কার্যালয় থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন কারারুদ্ধ খালেদা জিয়ার পক্ষে মনোনয়ন ফরম উত্তোলন করা হয়েছে।

তার পক্ষে বেলা সাড়ে ১১টায় জেলা বিএনপির আহ্বায়ক গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের প্রতিনিধি মনোনয়ন ফরমটি সংগ্রহ করেন।

খালেদা জিয়া ছাড়াও মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ, পৌর মেয়র অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবুর রহমান।

খালেদা জিয়ার মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করার সত্যতা নিশ্চিত করে গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বলেন, কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তে চেয়ারপারসনের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করা হয়েছে।

বগুড়া সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এসএম জাকির হোসেন বলেন, গতকাল বিকাল পর্যন্ত বগুড়া-৬ আসনের জন্য ১০ জন মনোনয়ন ফরম উত্তোলন করেছেন।

তারা হলেনÑ বিএনপির খালেদা জিয়া, গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ, অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবুর রহমান, আওয়ামী লীগের টি জামান নিকেতা, জাতীয় পার্টির নুরুল ইসলাম ওমর, বাংলাদেশ কংগ্রেস পাটির মুনসুর রহমান।

এ ছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন সাবেক সংসদ সদস্য ও শিল্পপতি সাইফুর রহমান রাজ ভা-ারী, মোটর শ্রমিক নেতা সৈয়দ কবির আহমেদ মিঠু, আবু জাফর আলী ও আবুল হাসান।

এদিকে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী বোর্ড বগুড়া জেলা শাখার যুগ্ম সম্পাদক টি জামান নিকেতাকে দলীয় প্রার্থী ঘোষণার পর থেকেই দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে আনন্দের বন্যা বইছে।

তারা বলছেন, দীর্ঘ ১০ বছর পর ফের নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার সুযোগ পেলেন নেতাকর্মীরা। বগুড়ার উন্নয়নে নৌকা প্রতীকের কোনো বিকল্প নেই। জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আব্দুস সালাম বাবু জানান, ২০০৮ সালের নির্বাচনের পর বগুড়া-৬ আসনটি মহাজোটকে দেওয়া হয়।

এখানে তাদের শক্তিশালী প্রার্থী হচ্ছেন জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব নুরুল ইসলাম ওমর।

তারা আশা করছেন শেষ সময়ে হলেও আওয়ামী লীগ তাদের প্রার্থী প্রত্যাহার করে নিয়ে এ আসনটিতে আগের মতোই মহাজোটকে ছাড় দেবে। এই আসনের সাবেক এমপি ও জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম ওমর বলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী দিয়েছে ঠিক আছে। তবে জাতীয় পার্টিও আমাকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দিয়েছে।

এই আসন মহাজোটকে ছাড় না দেওয়া হলে জাতীয় পার্টি এককভাবেই নির্বাচনে অংশ নেবে। তিনি বলেন, বিগত পাঁচ বছর সংসদ সদস্য হিসেবে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে উন্নয়ন পৌঁছে দিয়েছি।

উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আবারও মাঠে থাকব। বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও সাবেক এমপি জিএম সিরাজ বলেন, দলের হাইকমান্ড নির্বাচনের জন্য দলীয় প্রধান পাঁচজনকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছেন। আমরা পাঁচজনই প্রার্থী হব।

পরে দলের সিদ্ধান্তে একজন রেখে অন্য চারজনকে প্রত্যাহার করতে বলা হবে। বগুড়ার স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে সৈয়দ কবির আহম্মেদ মিঠু এরই মধ্যে তার কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে নির্বাচনের মাঠে নেমে পড়েছেন।

অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য ও শিল্পপতি সাইফুর রহমান রাজ ভা-ারীও ভোটের মাঠে রয়েছেন। ভা-ারী জানান, তার পরিবার বগুড়াবাসীর জন্য অনেক করেছে। এখন তিনিও সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে এ অঞ্চলের মানুষের জন্য কাজ করে যেতে চান।

বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও সদরের প্রার্থী টি জামান নিকেতা বলেন, ‘আমাদের বড় দল হলেও এখানে কোনো ভেদাভেদ নেই, কোন্দল নেই। নেত্রী আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন। এখন সবাই মিলে নৌকার জন্য কাজ করছে। আমরা সম্মিলিত প্রচেষ্টায় জয়ী হব ইনশাল্লাহ।