advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ট্রফিতেই চোখ সাকিবের

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৪ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৪ মে ২০১৯ ০১:৩৮
advertisement

দ্বাদশ বিশ্বকাপের দামামা বেজে গেছে। বিশ্বকাপ খেলতে ইংল্যান্ডে জড়ো হয়েছেন অংশ নেওয়া ১০টি দলের ক্রিকেটার, কোচ ও কর্মকর্তারা। আগামী ৩০ মে থেকে বিশ্বকাপ শুরু হবে। এর আগে প্রস্তুতি ম্যাচে নিজেদের ঝালিয়ে নেবে দলগুলো। একটু আগেভাগেই ইংল্যান্ডের কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে সেখানে গেছে টাইগাররা।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ট্রফি জয়ের পর লেস্টারে তিন দিনের প্রস্তুতি ক্যাম্প শেষে বর্তমান দল কার্ডিফে অবস্থান করছে। এখানে ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার পর ২ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপের মূলপর্বের লড়াই শুরু হবে বাংলাদেশের। বিশ্বকাপ মিশন শুরু করার আগে আইসিসি ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে অলরাউন্ডারের তালিকায় শীর্ষস্থান ফিরে পেয়েছেন সাকিব আল হাসান।

বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারের চোখ বিশ্বকাপ ট্রফির দিকেই। ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে সাকিব জানিয়েছেন, বাংলাদেশের বিশ্বকাপ জয়ের মোক্ষম সুযোগ রয়েছে। তবে যে ফরম্যাটে খেলা হবে, সেটিও মাথায় রাখতে হবে। খুবই ধারাবাহিক ক্রিকেট খেলতে হবে। এটা করতে পারলে নকআউট-পর্ব পেরিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারবে দল। দল নিয়ে খুবই আত্মবিশ্বাসী সাকিব।

বিশ্বকাপে ব্যক্তিগত চাওয়া প্রসঙ্গে সাকিব জানান, বাংলাদেশ ট্রফি জিতবে- এটাই আশা করেন। এ স্বপ্ন সত্যি করতে হলে সবাইকে একসঙ্গে জ্বলে উঠতে হবে। আরও কিছু ব্যাপার রয়েছে। আইপিএলে পর্যাপ্ত ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি সাকিব। তবে কঠোর পরিশ্রম করেছেন। বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। অনুশীলন সেশনে কাজ করে যাচ্ছেন সাকিব। গত কয়েক বছরে যে পারফরম্যান্স দেখিয়েছে বাংলাদেশ, সেটি নজর কেড়েছে সবার।

দিন দিন উন্নতি করেছে দল। দলের বোলিং বিভাগ নিয়ে অত বেশি ভাবনা নেই সাকিবের। তার মতে, অভিজ্ঞতা দলকে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে সাফল্য এনে দেবে। সাকিব জানান, আমি মনে করি, আমাদের দলটি খুবই ভালো। বোলিং নিয়ে বেশি চিন্তা নেই। আমি খুবই আশাবাদী। আমাদের বেশ কিছু খেলোয়াড় আছেন, যারা তিনটি বা চারটি করে বিশ্বকাপ খেলেছেন। আমাদের অভিজ্ঞতা আছে। এটা একটা ভালো দিক।

কী করা দরকার তা আমরা ভালো করেই জানি। শুরুতেই আমাদের মোমেন্টাম পাওয়ার দরকার। আমি আত্মবিশ্বাসী। যে কেউ তাদের দিনে যে কাউকে হারাতে পারে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো ধারাবাহিকতা। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সুবাদে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের সঙ্গে খেলা ও মেশার সুযোগ পেয়েছেন বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। সাকিব মনে করেন, বিশ্বজুড়ে টি-টোয়েন্টি লিগ হচ্ছে।

খেলোয়াড়দের অভিজ্ঞতা অর্জনের একটি প্ল্যাটফর্ম এটি। সেরা ক্রিকেটারদের কাছ থেকে খেলোয়াড়রা দেখছে, শিখছে। এটা প্রতিযোগিতা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। এবারের বিশ্বকাপে ফেভারিট তকমা এঁটেছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও ভারত। সাকিবের মতে, ফেভারিট হলেই যে বিশ্বকাপের সেরার মুকুট পরবে, তা কিন্তু নয়। কাগজে-কলমের হিসাবে নয়, মাঠের লড়াইয়ে কারা এগিয়ে সেটিই দেখতে চান সাকিব।

তিনি জানান, এ মুহূর্তে বিরাট কোহলি ও ইয়ান মরগ্যানের দল বিশ্বক্রিকেট (৫০ ওভারের ক্রিকেট) শাসন করছে। পঞ্চাশ ওভারের ক্রিকেট বিশ্বকাপে ফেভারিট দলই যে ট্রফি জিতবে, এমন নয়। অস্ট্রেলিয়াও সম্প্রতি ভালো খেলছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজও জেগে উঠতে পারে। প্রত্যেকটি দল লড়াইয়ের জন্য মুখিয়ে রয়েছে।