advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

অ্যাপসে ভোগান্তি বেড়েছে, স্টেশনে উপচেপড়া ভিড়

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৫ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৫ মে ২০১৯ ০৮:১৮
advertisement

রেলসেবা অ্যাপস চালুর পর ঈদের ট্রেনের আগাম টিকিট কেনায় ভোগান্তি কমবে বলে মনে করা হয়েছিল। তবে সেই অ্যাপস ঠিকমতো কাজ না করায় ভোগান্তি দ্বিগুণ হয়েছে টিকিটপ্রত্যাশীদের।

অ্যাপসের পেছনে অনেক সময় ব্যয় করে ব্যর্থ হয়ে তাদের ছুটতে হচ্ছে রেলস্টেশনে। সেখানে গিয়ে দাঁড়াতে হচ্ছে দীর্ঘ লাইনে। ফলে স্টেশনগুলোয় এখন উপচেপড়া ভিড়।

ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির তৃতীয় দিনে গতকাল শুক্রবারও কাউন্টারের সামনে দিনভর ছিল দীর্ঘ লাইন। ভোগান্তি এড়াতে চালু হওয়া অ্যাপসের কারণে দুর্ভোগ আরও বেড়েছে। এর সমাধান হবে ঈদের পর- কর্তৃপক্ষের এমন আশ্বাসে আরও বিরক্ত টিকিটপ্রত্যাশীরা।

গতকাল বিক্রি হয়েছে ২ জুনের টিকিট। আজ বিক্রি হবে ৩ জুনের। এবারই প্রথম রেলসেবা নামের অ্যাপসের মাধ্যমে টিকিট বিক্রি করছে রেল কর্তৃপক্ষ।

৫০ ভাগ বরাদ্দ এই অনলাইনের মাধ্যমের জন্য। কিন্তু এতে টিকিট না পাওয়ায় বাড়তি ক্ষোভ নিয়ে টিকিটপ্রত্যাশীরা ভিড় জমাচ্ছেন স্টেশনে। গতকাল টিকিটের চাহিদা ছিল তুলনামূলক বেশি।

তাই দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর টিকিট পেয়ে অনেকের চোখে-মুখে দেখা দেয় আনন্দের ছাপ। আর যারা টিকিট পাননি, তাদের স্টেশন ত্যাগ করতে হয়েছে মলিন মুখে।

রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন জানান, অ্যাপসের মাধ্যমে টিকিট সংগ্রহে ভোগান্তির বিষয়টি নজরে এসেছে। আপাতত আগাম টিকিট বিক্রি শেষ হোক, পরে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। রেলের টিকিট বিক্রিতে অনলাইন সেবা দিচ্ছে সিএনএস।

প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুনির উজ জামান বলেন, অতিরিক্ত হিটের কারণে এ অবস্থা হয়েছে। ঈদের পর এ রকম থাকবে না। সমাধান হয়ে যাবে।

গতকাল ভোরে কমলাপুর স্টেশনে যান সিলভিয়া। যাবেন রাজশাহী। লম্বা লাইন ঠেলে ১০টার দিকে কাউন্টারের সামনে গেলে তাকে বলা হয়- এসি টিকিট নেই।

সিলভিয়ার আগে যারা স্টেশনে গেছেন, তারাও এসি টিকিট পাননি। এ রকম একজন মোস্তাফিজ। যাবেন পঞ্চগড়। তিনি জানান, সকাল সোয়া ৯টার দিকে কাউন্টার থেকে বলা হয় এসি টিকিট নেই। তা হলে কখন কার কাছে বিক্রি করল টের পেলাম না।

কমলাপুর স্টেশনের বাইরে আরও চার স্থানে টিকিট বিক্রি হচ্ছে। গন্তব্যভেদে স্থান পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে। কিন্তু প্রচার কম থাকায় না জেনে অনেকেই কমলাপুরে ভিড় করছেন।

সিলেট রুটের যাত্রী উজ্জ্বল জয়ন্তিকার টিকিটের লাইন খুঁজছেন। জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, এখানে যে এই ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাবে না, তা তিনি জানতেন না। এবার কমলাপুর ছাড়াও বনানী, তেজগাঁও, ফুলবাড়ীয়া, বিমানবন্দর স্টেশন থেকে একেক রুটের ট্রেনের টিকিট বিক্রি হচ্ছে।