advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

স্বপ্নের কার্ডিফে মাশরাফিরা

মাইদুল আলম বাবু,লন্ডন থেকে
২৫ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৫ মে ২০১৯ ০১:৪১
advertisement

সোফিয়া! পাঠক ভুল বুঝবেন না। স্পেনের রানি সোফিয়া নন। ওয়েলশের রাজধানী কার্ডিফ। আর শহরে বুকজুড়ে বুক ভরে শ্বাস নেয় সোফিয়া গার্ডেন। স্বভূম থেকে ১০ হাজার কিলোমিটার দূরের শহরের সঙ্গে দারুণ মিতালি।

২০০৫ সালের ১৮ জুন মোহাম্মদ আশরাফুলের দুঃসাহসিক সেঞ্চুরি, আফতাব আহমেদের সেই গিলেস্পিকে উড়িয়ে ছক্কা বাংলাদেশকে এনে দিয়েছিল ‘অস্ট্রেলিয়া জয়’। সোফিয়া গার্ডেনস বদলে গেছে। কার্ডিফ ওয়েলশ স্টেডিয়ামের নামে চেনেন সবাই।

বাংলাদেশ মিতালি এখনো আছে। ২০১৭ সালের ৯ জুন নিউজিল্যান্ডকে বধ করে টাইগাররা উঠেছিল সেমিফাইনালে। বিশ্বকাপের মূলপর্বের ম্যাচ এখানে রয়েছে। তার আগে ২টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে টাইগাররা এখন সেই স্মৃতিবিজড়িত কার্ডিফে।

৮ জুন আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯-এ মূলপর্বের ম্যাচে ইংল্যান্ডের সঙ্গে এই কার্ডিফে বাংলাদেশের খেলা রয়েছে।

এর আগে বাংলাদেশ ওভালে দক্ষিণ আফ্রিকা ও নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে ম্যাচ খেলে ফেলবে। ইংল্যান্ডের সঙ্গে বাংলাদেশ আবার ইতিহাস গড়বে কিনা, সেটা সময় বলে দেবে। ২০১৫ বিশ্বকাপে ‘থ্রি লায়ন্স’দের হারিয়ে শেষ আটে পা রাখে মাশরাফিরা।

ইংল্যান্ড এই বিশ্বকাপের ফেভারিট। অবশ্য অতীত রেকর্ড বাংলাদেশের পক্ষেই। বাংলাদেশ দল গতকাল অনুশীলন করেছে।

২৬ জুন বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে টাইগারদের প্রতিপক্ষ সরফরাজ আহমেদের পাকিস্তান। ২০১৭ সালে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জিতেছিল সরফরাজের দলটি।

২৮ জুন কার্ডিফেই দক্ষিণ এশিয়ার আরেক জায়ান্ট ভারতের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। প্রস্তুতি ম্যাচ দুটি শেষে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল আবার লন্ডন ফিরে আসবে। ২ জুন ওভালে বিশ্বকাপ শুরু করবে মাশরাফিরা।

বিশাল বিশ্বকাপে পা রাখছে বাংলাদেশ। দুটি প্রস্তুতি ও ৯টি বিশ্বকাপ গ্রুপপর্বের ম্যাচ রয়েছে। শেষ চারে ১টি ও ফাইনালে উঠলে আরেকটি ম্যাচ। পুরো টুর্নামেন্টে খেলোয়াড়দের ফিটনেস ধরে রাখাটাও বেশ চ্যালেঞ্জ।

চোট তো ক্রিকেটারদের চিরকালের শত্রু। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতে প্রাণবন্ত টাইগাররা। এই অনুপ্রেরণা নিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।